চলতি বছর ৫ লাখ শ্রমিক নেবে মালয়েশিয়া

চলতি বছর ১৪ লাখ ডাটাবেইজ থেকে নতুন বিজনেস-টু বিজনেস (বিবি) পদ্ধতির আওতায় বাংলাদেশ থেকে পাঁচ লাখ শ্রমিক নিয়োগ দেবে মালয়েশিয়া।

বুধবার মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী দাতো ড. আহমাদ জাহিদ হামিদি বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব কাজী আবুল কালাম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বুধবার মালয়েশিয়ার পুত্রজায়ায় মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতো সিরি ড. আহমাদ জাহিদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হন। এ সময় মালয়েশিয়ার মন্ত্রী বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর নেতৃত্বে নেতৃত্বে সাত সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল পাঁচ দিনের সফরে মালয়েশিয়ায় রয়েছেন।
মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বৈধ শ্রমিকদের মালয়েশিয়া স্বাগত জানাবে এবং চাকরির আবেদন অনলাইনে গ্রহণ করা হবে যা সরকারি সংস্থাসমূহ তদারকি করবে। তিনি বলেন, প্রত্যেক শ্রমিক তিন বছর মেয়াদের জন্য নিযুক্ত হবেন এবং এক বছর মেয়াদ বৃদ্ধির সুযোগ থাকবে।

প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন গ্রহণযোগ্য বা অল্প খরচে জনশক্তি রফতানির ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, কর্মীদের কল্যাণ ও নিরাপত্তার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান নিশ্চিত করবে। নির্ধারিত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে বিদেশে পাঠানোর জন্য বাছাইকৃত কর্মীদের ৪৮ দিনের প্রশিক্ষণ দেয়া হয় বলে মালয়েশিয়া সরকারকে অবহিত করেন।
২০০৯ সালের পর চার বছর বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার মালয়েশিয়ার দুয়ার বন্ধ ছিল।

২০১৩ সাল থেকে উভয় দেশের মধ্যে সই হওয়া জি টু জি বা সরকারিভাবে এ পর্যন্ত মাত্র সাড়ে সাত হাজারের মতো কর্মী মালয়েশিয়ায় পাঠানো সম্ভব হয়েছে। জি টু জি পদ্ধতিতে মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণে স্থবিরতা দেখা দেয়ায় এ সেক্টরের সংশ্লিষ্টদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছিল।