হাত বাড়ালেই পাওয়া যায় মাদক রাণীনগরে জুয়া ও মাদকের ব্যবসা জমজমাট ॥ মাদকের নীল ছোবলে যুব সমাজ

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় আবারও হেরোইন, ফেনসেডিল, গাঁজা, দেশিমদ ও ইয়াবা সহ নানা রকমের মাদকদ্রব্য বিক্রয়ের অভয়ারন্যে পরিণত হয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে বিক্রয় হচ্ছে হেরোইন, গাঁজা, ফেনসেডিল ও ইয়াবা সহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য। এতে নেশার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে উড়তি বয়সের ছেলেরা আর মাদকের নীল ছোবলে আক্রান্ত হচ্ছে যুব সমাজ। হাত বাড়ালেই যত্রতত্র পাওয়া যাচ্ছে মাদক দ্রব্য।আইন শৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতির কারণে আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, প্রভাবশালীদের জোরে ও পুলিশকে ম্যানেজ করে চিহ্নিত এই মাদক ব্যবসায়ীরা চালিয়ে যাচ্ছে এই মাদক ব্যবসা । মাদকের পাশাপাশি চলছে বিভিন্ন খেলাকে কেন্দ্র করে লাখ লাখ টাকার জুয়া। এতে আজ অনেকেই সব হারিয়ে দেউলিয়া হয়ে এলাকা ত্যাগী। উপজেলার বিভিন্ন মোড়ে দালালদের মাধ্যমে চলছে এই সব জুয়া আর লাভবান হচ্ছে এক শ্রেণির দালালরা।
গোপন সূত্রে জানা, উপজেলার পশ্চিম বালুভরা ও পূর্ব বালুভরা ( চোরপাড়া) গ্রাম বহু বছর থেকে উপজেলার মধ্যে মাদক পল্লী নামে পরিচিত। এই গ্রামে হাত বাড়ালেই পাওয়া যায় হেরোইন, গাঁজা, দেশিমদ, ইয়াবা, ফেনসেডিল ও মেয়েসহ হরেক রকমের নেশার সামগ্রী। এই গ্রামের চেরুর ছেলে আলমগীর (৩০), ইবির উদ্দীনের ছেলে নয়ন (২৫), মোহন (৩০) , আকবরের জামাই জামরুল (৩৫), সমসেরের জামাই এছাহক (৩২), ছায়ের আলীর ছেলে কালু (৩০), লুৎফরের জামাই আজিজুল (৩২)। এছাড়াও থানার পার্শ্ববর্তি পূর্ব বালুভরা (চোর পাড়া) গ্রামের মৃত-আফতাব চোরের স্ত্রী মুন্নী (৩৯) ও তার মেয়ে দিতি (২২), মোসলিম উদ্দীন (৫৫), তার স্ত্রী রেহেনা (৪০), মেয়ে তাছলি (২৫) ও জামাই আব্দুল জলিল (৩৫) ও তার ছেলে তুষার (২২) সহ পুরো পরিবার, মৃত- জোবেদ হোসেন ওরফে ভালো গরুর স্ত্রী রেহেনা (৫০), বড় মেয়ে হেরোইন সম্রাজ্ঞী আনেরা (৪২), মেজ মেয়ে শাহানাজ (৩৮), মেয়ে মাদক স¤্রাজ্ঞী যানো (৩৬), জামাই বক্কর হোসেন (৪২) ও বক্করের ছেলে ধলু (১৮) সহ এই গ্রামের অধিকাংশ লোকজন দীর্ঘদিন যাবত এই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। অভিনব কায়দা হিসেবে এই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের শিশু সন্তান সহ অর্থের লোভে গ্রামের অন্যান্য ছোট ছোট শিশুদের বিভিন্ন স্থানে মাদক পৌছানোর কাজে ব্যবহার করে আসছে দীর্ঘদিন যাবত। এই গ্রামগুলো উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাদক দ্রব্য সরবরাহের কেন্দ্র হিসেবে কাজ করছে। এছাড়াও উপজেলার পালসা-কৃষ্ণপুর,বদলাসহ পার্শ্ববর্তী নওগাঁ সদরের চকবুলাকী গ্রামের অনেক পরিবারই দির্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবস্যাসহ বিভিন্ন অনৈতিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছে। এই দলটি সরাসরি হিলি বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কম মূল্যে ফেনসেডিল, হেরোইন, ইয়াবা ও গাঁজা এনে রাণীনগরের বিভিন্ন এলাকায় ও নওগাঁ সদরের সিমান্ত এলাকা চকউজির স্কুলের বিভিন্ন সুরক্ষিত স্থানে ও উপজেলার হাসপাতাল মোড় সহ বিভিন্ন মোড় থেকে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ফেনসেডিল, হেরোইন, গাঁজা, ইয়াবা ও দেশিমদ পাইকারী মুল্যে তাদের পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে সরবারাহ করে আসছে। বিভিন্ন সময় এই সব চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের সমারিক শাস্তি শেষে আবার তারা পুরোদমে শুরু করে এই অবৈধ ব্যবসা।