বগুড়ায় আটক মহিলা জামায়াত কর্মীদের বিরুদ্ধে নাশকতায় উস্কানি দেবার অভিযোগ

বগুড়া সংবাদদাতাঃ বগুড়ায় ইফতার মাহফিলের প্রস্ততি সভা থেকে আটক মহিলা জামায়াতের ৫ কর্মীর বিরুদ্ধে ২০০৯ সালের (সংশোধিত ২০১৩) সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। সদর থানার এস আই গোলজার রহমান বাদী হয়ে সোমবার রাতে মামলাটি দায়ের করেন। এই মামলায় মহিলা জামায়াতের ৫ কর্মীকে রাতেই জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, আটককৃত জামায়াতের ৫ মহিলা কর্মী সদরের এরুলিয়ার একটি বাড়ীতে গ্রামের সাধারন মহিলাতের একত্রিত করে তাদের মাঝে সরকারবিরোধী জিহাদী বই বিতরন করছিলেন। এছাড়া তারা নাশকতার উদ্দেশ্যে রাস্ট্রীয় সম্পত্তি ধ্বংসের উস্কানি ও প্রচারনা চালাচ্ছিলেন।বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (প্রশাসন-অপারেশনস) আবুল বাসার মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।íএদিকে, আটক ৫ মহিলা জামায়াত কর্মীকে মঙ্গলবার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। তাদের জামিনের আবেদন করলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন ।
উল্লেখ্য, বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের একটি বাড়ীতে গ্রামের মহিলাদের নিয়ে গত রোববার দুপুর ১২টায় মহিলা জামায়াতের উদ্যোগে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দুপুর দেড়টার দিকে একদল গোয়েন্দা পুলিশ সেখান থেকে মহিলা জামায়াতের ৫ কর্মিকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। আটক মহিলা জামায়াতের কর্মীরা হলেন- আব্দুল মজিদের স্ত্রী তাছলিমা খাতুন (৫২), আব্দুল গফুরের স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিন (৪০), সুলতান আলীর স্ত্রী জাকেয়া খাতুন (৪২), মৃত রায়হান আলীর স্ত্রী পিয়ারা ওরফে সুমাইয়া (৪৫) এবং আবু বকরের স্ত্রী ও সাবেক শিবির নেতা শহীদ আবু রুহানীর মা রেহেনা বেগম (৪৫)।