নন্দীগ্রামে আ”লীগ নেতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী দিয়ে ছোট ভাইকে ছুরিকাঘাত করে জায়গা দখলের অভিযোগ

নাজমুল হুদা, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার নন্দীগ্রামে আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী দিয়ে ছোট ভাইকে ছুরিকাঘাত করে জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, সোমবার দুপুরে উপজেলার ১নং বুড়ইল ইউনিয়নের কামুল্যা গ্রামে এ ঘটনায় সন্ত্রাসীদের মারপিট ও ছুরিকাঘাতে আহত সেকেন্দার আলীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল হকের ছেলে মঞ্জুরুল আলম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তারিন সরকার এবং তার সহযোগী সাইফুল ইসলামকে আটক করেছে থানা পুলিশ। এ খবর পাঠানোর সময় দু’পক্ষের মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছিল। অভিযোগে জানা যায়, সিংজানি গ্রামে ৬৫ শতক জমির মালিকানা নিয়ে সেকেন্দার আলীর সাথে বড় ভাই ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুল হকের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। সেকেন্দার আলী বলে জায়গাটি তার কেনা ও আর আজিজুল বলে এটি তাদের পৈতৃক সম্পত্তি। সোমবার দুপুরে আজিজুল হকের পক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তারিন সরকার বগুড়া শহর থেকে বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী ভাড়া করে নিয়ে আসে। তারা সেকেন্দার আলীকে মারপিট করে তার ৬৫ শতক জায়গা দখল ও সেখানে তিনটি ঘর তোলে। এরপরেই নন্দীগ্রাম বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় সেকেন্দার আলীর লোকজন মুক্তারিন সরকারকে বেদম মারপিট করে। থানা পুলিশ দু’পক্ষকে থানায় ডেকে কাগজপত্র দাখিল করতে বলে। এ সময় মুক্তারিন সরকার থানার মধ্যেই সেকেন্দার আলীকে দেখে নেবার হুমকি দেয়। পরে মুক্তারিন সরকার এবং তার লোকজন সেকেন্দার আলীকে মারপিট ও হাতে ছুরিকাঘাত করে। এক পর্যায়ে তার মোটর সাইকেল ভাংচুর করে। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ১নং বুড়ইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান আলো জানায়, জায়গা নিয়ে সেকেন্দার আলী ও আজিজুলের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। সোমবার আজিজুল হক শহর থেকে ভাড়াটিয়ে সন্ত্রাসী এনে সেকেন্দার আলীকে বেদম মারপিট করে। এরপর জায়গা দখল করে সেখানে তিনটি ঘর তুলেছে। উভয় পক্ষ থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্ততি নেয়।

সর্বশেষ সংবাদ