করোনার আঘাতে ব্যাংকের পরিচালন মুনাফায় ধ্বস

ব্যাংকের পরিচালন মুনাফায় সজোরে আঘাত হেনেছে করোনা ভাইরাস। এই ভাইরাসের ক্ষতি মোকাবেলায় এপ্রিল মাস থেকে সুদ আদায় স্থগিত। আমদানি-রপ্তানির করুণ দশায় কমিশন ব্যবসাতেও ধ্বস। ব্যাংকগুলোতে খোজ নিয়ে জানা গেছে, চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) মুনাফা কমেছে প্রায় প্রতিটি ব্যাংকের। আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ১ থেকে ১৬৩ কোটি পর্যন্ত ক্ষতি হয়েছে বিভিন্ন ব্যাংকের।

সংশ্লিষ্ট ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, সাউথইস্ট ব্যাংকের এবছর পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৩৪২ কোটি টাকা যা আগের বছর ছিল ৫০৫ কোটি টাকা। এবছর পূবালী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৫০৪ কোটি টাকা আগের বছরে ব্যাংকের এই মুনাফা ছিল ৫৪০ কোটি টাকা। মার্কেন্টাইল ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ২৪৩ কোটি টাকা যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩৩১ কোটি টাকা।

রূপালী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা ৭৫ কোটি থেকে বেড়ে এ বছরে জুন শেষে দাঁড়িয়েছে ১৩০ কোটি টাকা।

আলোচিত সময়ে ৯০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করেছে এন আর বি সি ব্যাংক। আগের বছরের একই সময়ে ৮৯ কোটি টাকা মুনাফা অর্জন করে ব্যাংকটি। মেঘনা ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে মাত্র ১২ কোটি টাকা আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৪৫ কোটি টাকা। জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত যমুনা ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ২৮০ কোটি টাকা। আগের বছরে যা ছিল ৩১০ কোটি। এক্সিম ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা কমে দাঁড়িয়েছে ৩১৭ কোটিতে। আগের বছরে ৩৩০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা অর্জন করেছিল ব্যাংকটি।

মধুমতি ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ১২৫ কোটি টাকা। যা আগের বছরে ছিল ৯৮ কোটি। চতুর্থ প্রজন্মের সাউথ বাংলা ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৭০ কোটি টাকা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৯০ কোটি। এনসিসি ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ২৯০ কোটি। আগের বছরে যা ছিল ৩৬২ কোটি টাকা। মিডল্যান্ড  ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৫২ কোটি। গত বছরের এই সময়ে তাদের মুনাফা ছিল ৬৫ কোটি টাকা।