বগুড়া জেলা মহিলা শ্রমিক লীগ সভাপতি জলিকে এম.পি হিসেবে দেখতে চান শাজাহানপুরবাসী

উত্তরবঙ্গ নিউজ ডটকম:বগুড়া জেলা মহিলা শ্রমিকলীগের সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী যুব স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় সদস্য শামিমা আকতার জলির পদচারণায় মুখরিত বগুড়ার রাজনৈতিক অঙ্গন। ছাত্রজীবন হতে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষশক্তি ছাত্রলীগের মধ্য দিয়ে তাঁর রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়। ছাত্রজীবনে  দলীয় পদ না নিয়েও তাঁর রাজনৈতিক দর্শন ছিল চোখে পড়ার মত। তিনি বগুড়া সরকারী আযিযুল হক কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় হতে কৃতিত্বের সহিত দর্শন বিভাগ হতে অনার্সসহ এম.এ পাশ করেন। ছাত্রজীবন হতে সমাজের অবহেলিত দুঃস্থ, আর্তপীড়িত মানুষের জন্য নিজেকে বিকিয়ে দেয়ার অদম্য ইচ্ছা শক্তি ছিল প্রবল। বিশেষ করে সমাজের ঝড়ে পড়ার শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মূল স্রোতধারায় সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে তিনি ইতিমধ্যে “জলি ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি” নামক একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী, অরাজনৈতিক, অলাভজনক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ জয়েন্ট স্টক অব কোম্পানীজ হতে নামের অনুমোদন নিয়েছেন। তিনি বগুড়া জেলা মহিলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর হতেই স্ব-উদ্যোগে মহিলা শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে তার প্রাণপন প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। সুবিধাবঞ্চিত মহিলা শ্রমিকদের যেকোনো সুযোগ সুবিধা প্রাপ্যতার ক্ষেত্রে তিনি আপোষহীন নেত্রী হিসেবে বর্তমানে সুপরিচিত। তিনি তাঁর সহযোগী রাজনৈতিক নেত্রী বন্ধুদের নিয়ে পিছিয়ে পড়া দিন মজুর মহিলা শ্রমিক নারীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে হরদম। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার নারী বান্ধব সরকার। নারীদের অধিকার আদায়ের দিকে বিবেচনা করে নারীদের সমসুযোগ, সমরাজনৈতিক অংশগ্রহণ, সম অংশীদারিত্ব সহ সকল উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তাঁরই ধারাবাহিকতায় নারীরা আর পিছিয়ে নেই তাঁরাও দেশ জাতি সমাজের একটা বৃহৎ অংশ। এদিক বিবেচ্য রেখে শাজাহানপুর তথা বগুড়ার-০৭ আসনের মানুষের এখন প্রাণের দাবী হিসেবে স্থান পেয়েছে বগুড়া জেলা মহিলা শ্রমিক লীগের সভাপতি শামিমা আকতার জলিকে আমরা এম.পি হিসেবে দেখতে চাই।