ফারুককে সিঙ্গাপুর নেওয়া হচ্ছে রোববার

ঢাকাই সিনেমার মিয়া ভাই খ্যাত অভিনেতা ও ঢাকা-১৭ আসনের সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুকের শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য আগামী রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) সিঙ্গাপুরে নেওয়া হবে। বিষয়টি তিনি নিজেই জানিয়েছেন।

বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) এভারকেয়ার হাসপাতালে ফারুকের শারীরিক অবস্থার পর্যবেক্ষণের জন্য চিকিৎসকদের এক বোর্ড মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। হাসপাতাল সূত্রে এমনটাই জানা গেছে, চিকিৎসকরা প্রাথমিক ধারনা করছেন যে তিনি টিবি রোগে ভুগছেন। তবে এ বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি চিকিৎসকরা। কিছু টেস্ট করলেই নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এদিকে এই টেস্টগুলো সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে করাতে চান কিংবদন্তি অভিনেতা ফারুক। ইতোমধ্যেই চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে যাওয়ার অনুমতি মিলেছে তার। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) দেশ ছাড়বেন ‘সুজন সখি’ খ্যাত এ অভিনেতা।

তিনি তার ভক্ত শুভাকাঙ্ক্ষী ও সহকর্মীদের কাছে দোয়া চেয়ে বলেন, আমি আপনাদেরই লোক, আপনাদের সাথেই আরও অনেক দিন থাকতে চাই। আপনারা দোয়া করবেন যেন সুস্থ হয়ে ফিরে আসি আপনাদের মাঝে।

এর আগে, শরীরে জ্বর থাকায় গত ১৮ আগস্ট রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। কিন্তু বেশ কয়েক দফায় করোনা টেস্ট করা হলে সেখানে রেজাল্ট নেগেটিভ এসেছে। এরপর চিকিৎসা শেষে কিছুটা সুস্থ হওয়ায় ২৬ আগস্ট হাসপাতাল থেকে বাসায় যান তিনি।

এরপর শারীরিক অবস্থা আবার খারাপ হওয়ায় ৩১ আগস্ট আবারো তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আবারও তার করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হলে তা নেগেটিভ আসে। পাশাপাশি তার টাইফয়েড, ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়ার নমুনাও পরীক্ষা করা হয়েছে। সবকিছুই নেগেটিভ রয়েছে। কিন্তু জ্বর না সারায় দুশ্চিন্তা বাড়ছে এই অভিনেতাকে নিয়ে।

এ প্রসঙ্গে নায়ক ফারুকের স্ত্রী ফারহানা ফারুক গণমাধ্যমকে বলেন, এখন পর্যন্ত তার শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক। চিকিৎসকরা বলছেন, রক্তে সংক্রমণের জটিলতা দেখা দিয়েছে, যা থেকে খারাপ কিছু হতে পারে। সেজন্য দ্রুত উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে।

ফারহানা ফারুক বলেন, দ্রুতই তাকে বিদেশে নিয়ে যাবার কথা ভাবছি আমরা। সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগও হচ্ছে। করোনার কারণে বর্তমানে বিদেশে যাতায়াতে অনেক জটিলতা আছে। এসব মোকাবিলা করে উনাকে দ্রুত সিঙ্গাপুরে নেওয়ার চেষ্টা করা হবে।

স্বামীর সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন ফারহানা ফারুক।