শাজাহানপুরে ঋণের কিস্তির চাপে গলা কেটে আত্মহত্যা করলো যুবক

সজিবুল আলম সজিব শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: এনজিও থেকে নেওয়া ঋণের কিস্তির টাকা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পরিশোধ না করার অপমান সইতে না পেরে বগুড়ার শাজাহানপুরের বেলাল(২৬) নামের এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। সে উপজেলার চোপীনগর দক্ষিণ মধ্যপাড়ার কৃষক লুৎফর রহমানের ছেলে। নিহত বেলাল হোসেন প্রথমে বিষপান এবং পরে ইলেকট্রিক শান মেশিন দিয়ে নিজের গলা কেটে আত্মহত্যা করে। তবে স্বজনদের দাবি কিস্তি পরিশোধের জন্য এনজিও থেকে তাকে বারবার চাপ দেওয়া হচ্ছিল। মঙ্গলবার দুপুর ২ টার দিকে উপজেলার চোপিনগর মধ্যপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।
পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, বেলাল হোসেনের কয়েকটি এনজিও থেকে ঋণ নেয়া ছিলো।  মঙ্গলবার সকালে ঋণের কিস্তির টাকা নেওয়ার জন্য এনজিও কর্মী আসেন। তখন তিনি তাদের বিকেলে আসতে বলেন । এরপর দুপুরের দিকে এনজিও কর্মী কিস্তির টাকা নেওয়ার জন্য আসলে বেলাল তা দিতে ব্যর্থ হয়। তখন এনজিও কর্মী বেলালকে অপমান করেন। সেই অপমান সহ্য করতে না পেরে সে প্রথমে বিষপান করে পরে ইলেকট্রিক শান মেশিন দিয়ে নিজের গলা কেটে ফেলার চেষ্টা করে। তখন গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে তার মৃত্য হয় । স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বেলাল হোসেন খুব ভালো ছেলে ছিলো। বেশ কয়েকটি এনজিও থেকে তার ঋণ নেওয়া ছিলো। সেই ঋণের টাকার চাপে অপমান সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে বেলাল । শাজাহানপুর থানার ওসি আজিম উদ্দিন জানান, অব্যশই আইনগত সহায়তা পাওয়ার সুযোগ আছে। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি।

সর্বশেষ সংবাদ