ফরিদপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে হাইকোর্টে তলব

ফরিদপুরের নগরকান্দায় স্কুলছাত্র অন্তর হত্যা মামলায় আইন অনুসরণ না করে আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ করায় ফরিদপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: মাইনুল ইসলামকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। আগামী 8 অক্টোবর আদালতে হাজির হয়ে তাকে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

এই মামলার দুই আসামির জামিন নামঞ্জুরের বিরুদ্ধে আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো: মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট এই আদেশ দেন।

আদালতে আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল ও অ্যাডভোকেট নুসরাত ইয়াসমিন।

আইনজীবী বলেন, ২০১৮ সালের ৭ জুন রাতে অপহরণের পর ওই রাতেই গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে অন্তরকে হত্যা করা হয়। এই মামলার দুই আসামি আজিজুল শেখ ও আশরাফ শেখ ফরিদপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে জামিন আবেদন করলে আদালত নামঞ্জুর করেন। ট্রাইব্যুনালের এই আদেশের বিরুদ্ধে দুই আসামি হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আপিল করেন।

বুধবার আপিল শুনানিতে আসামিদের আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল আদালতকে বলেন,  ২০১৮ সালের ২৮ জুন জবানবন্দি একইদিনে গ্রহণ করেছেন ফরিদপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। তিনজন আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রায় একইরকম। পরে আদালত এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য ফরিদপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: মাইনুল ইসলামকে তলব করেন। একইসঙ্গে আসামিদের আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। বর্তমানে অন্তর হত্যা মামলাটি ফরিদপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন রয়েছে।