সিংড়ার বিএনপির রাজনীতিতে দাউদার মাহমুদ এখন ফ্যাক্টর

সিংড়া (নাটোর) থেকে ফিরে নাজমুল হুদা সরকার: সিংড়ার বিএনপির রাজনীতিতে দাউদার মাহমুদ এখন বড় ফ্যাক্টর। তিনি ছাত্রদলের রাজনীতি থেকে শুরু করে বিএনপির রাজনীতিতে অনেকটা সক্রিয়। সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু ও সাবেক এমপি কাজী গোলাম মোর্শেদের আস্থাভাজন দাউদার মাহমুদ। নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত নাটোর ৩ আসন। এই আসনে ১৯৯১ সালের নির্বাচনে জামায়াত প্রার্থী আবু বকর সিদ্দিকী এমপি নির্বাচিত হয়। তার মৃত্যুর পর উপ-নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী কাজী গোলাম মোর্শেদ এমপি নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালের প্রথম নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ এমপি নির্বাচিত হন। এরপরের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী কাজী গোলাম মোর্শেদ এমপি নির্বাচিত হয়। তিনি পরপর ৩ বার এমপি নির্বাচিত হয়েছে। ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের তরুণ প্রার্থী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন বিএনপির প্রার্থী কাজী গোলাম মোর্শেদ। ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জুনাইদ আহমেদ পলক পুনরায় এমপি নির্বাচিত হয়েছে। এখন একাদ্বশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে  এলাকায় ভোট ভাবনা শুরু হয়েছে। আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হবেন বর্তমান এমপি ও প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি তরুন প্রার্থী হিসেবে জনগণের আস্থা অর্জন করে এমপি নির্বাচিত হতে সক্ষম হয়। সে কারণে বিএনপি হতে তরুন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার চিন্তা-ভাবনা চলছে বলে সূত্রে জানা গেছে। যদিও কাজী গোলাম মোর্শেদ বিএনপির রাজনীতিতে শক্ত অবস্থানে রয়েছে। তার পাশাপাশি দাউদার মাহমুদের অবস্থান অনেকটা ভালো। বিএনপির সম্ভাব্য অনেক প্রার্থীর নাম এসেছে। তাদের মধ্যে কাজী গোলাম মোর্শেদ, শামীম আল রাজি ও দাউদার মাহমুদের নাম তোরজোরে শোনা যাচ্ছে।  সিংড়া উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দাউদার মাহমুদ বর্তমান বিএনপির রাজনীতির দুঃসময়ের কান্ডারী হিসেবে পরিচিত। তাই তিনি শক্ত অবস্থানে বিএনপির হাল ধরে রয়েছে। দলীয় নেতাকর্মী ও জনগণের অনেকটা আস্থা দাউদার মাহমুদের প্রতি রয়েছে। প্রায় সবসময় তিনি সাংগঠনিক কর্মকান্ডে ব্যস্ত থাকে। বিএনপির নেতাকর্মীরা এমন তরুন নেতাকে আগামীতে উপজেলা বিএনপির নেতৃত্বে চায়। সেই দৃষ্টিতে দাউদার মাহমুদ সাধারণ সম্পাদক হবার সম্ভাবনা বেশি। যা দলের অনেক নেতাকর্মীরা বলেছে। তাকে সাধারণ সম্পাদক করলে সিংড়ার বিএনপির রাজনীতি বিগত দিনে চেয়ে অনেক এগিয়ে যাবে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দাউদার মাহমুদ ফ্যাক্টর হতে পারে।