রামপালের সোনাতুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে হাঁটু সমান পানি থৈ থৈ

সিয়াম রহমান,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ রামপাল উপজেলার সোনাতুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বছরের অধিকাংশ সময় পানিতে ভিজে ক্লাস করতে হয়। কেননা সামান্য বৃষ্টিতেই বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে হাঁটু সমান পানি জমে যায়। থৈ থৈ পানি পাড়ি দিয়েই ক্লাসে যেতে হয়। একটু বেশি বৃষ্টি হলে ক্লাসের মধ্যেও পানি জমে যায়। ফলে এ বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিশুদের লেখাপড়ার যেমন ক্ষতি হয় তেমনি ডায়রিয়া-নিউমোনিয়া লেগেই থাকে। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ অভিভাবক, এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট বিভাগের উদাসীনতার অভিযোগ করেছেন।
সোনাতুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৫২ সালে এলাকার বেশ কিছু শিক্ষানুরাগী প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৭৩ সালে এ বিদ্যালয়টি সরকারীকরণ করা হয়। ২০১১ সালে নতুন বিল্ডিং নির্মিত হয়। ২০১২ সালে স্থানীয় সংসদ সদস্য মিসেস হাবিবুন নাহার নতুন ভবন উদ্বোধন করেন। বর্ষার মৌসুমে বিদ্যালয় মাঠে হাঁটু সমান পানি জমে থাকায় ছাত ছাত্রীদের ভিজে ভিজে বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করতে হয়। মাঝে মধ্যেই বই-খাতা নিয়ে মাঠে থাকা গর্তে এসব শিশু শিক্ষার্থী পড়ে চুবানী খায়। পানিভর্তি মাঠ দেখলে মনে হয়, যেন মাছের ঘের।
শিশুদের বিদ্যালয়ে পাঠিয়ে অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন থাকেন। খেলার একমাত্র মাঠটি ৭ মাস ধরে পানিতে তলিয়ে থাকায় স্থানীয় শিশুরা খেলাধুলাও করতে পারে না। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মাঠটি ভরাট করতে বছরের পর বছর উর্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে আবেদন-নিবেদন করে আজও কোন ফল না পেয়ে হতাশ। সারা বছর বিদ্যালয়টি পানিতে ডুবে থাকায় শিশুদের নিয়ে সব সময় উদ্বিগ্ন থাকতে হয়।