ধৈঞ্চা চাষে কৃষকদের উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে রাণীনগরে কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে ফসলী জমির মাটির স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সবুজ সার হিসেবে ব্যবহারের জন্য ধৈঞ্চা চাষে প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকদের আগ্রহী করতে ২০১৬-১৭ইং অর্থ বছরে খড়িপ-২ মৌসুমে রাজস্ব বাজেটের আওতায় স্থাপিত ধৈঞ্চা প্রদর্শনীর মাঠ দিবস, কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সবুজ সার ও জ্বালানি হিসেবে ব্যবহারিত ধৈঞ্চা জমির উর্বরতা শক্তি বৃদ্ধি ও লাভজনক হওয়ায় এবছর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে কম বেশি ধৈঞ্চা চাষ হয়েছে। ফসলী জমির উর্বরতা শক্তি কমে যাওয়ায় রাসায়নিক সার কমিয়ে এই এলাকায় গত দুই বছর ধরে জৈষ্ঠ্য মাসে বোরো ধান কাটার পর ফাঁকা জমিতে ধৈঞ্চার বীজ ছিটিয়ে দুই থেকে তিন হাত লম্বা হওয়ার পরেই কৃষকরা কলের লাঙ্গল দিয়ে জমিতেই চাষ দিয়ে পানি দিয়ে পঁচিয়ে সবুজ সার হিসেবে ব্যবহার করছে। দেখতে কিছুটা সোনালী আঁশ পাটের মত হলেও এর ব্যবহার শুধু জ্বালানি কাজেই বেশি হয়ে থাকে। বিশেষ করে মৃৎ শিল্পের পাতিল-হাড়ি তৈরি শেষে আগুন দিয়ে পুরানোর কাজে জ্বালানি হিসেবে ধৈঞ্চার বেশ কদর। এছাড়াও গ্রামের গৃহবধুরা গরুর গোবর দিয়ে ক্যাঁড়া তৈরির সময় কাঠি হিসেবে ব্যবহার করে। উৎপাদন খরচ কম বিক্রয় মূল্য ভাল পাওয়ায় ধান ও অন্যান্য কৃষিপূণ্যের পাশাপাশি স্বল্প পরিমান হলেও স্থাণীয় কৃষকরা ধৈঞ্চা চাষ করছে। স্থাণীয় কৃষি অফিসের পরামর্শে কৃষকরা গত বছর ধৈঞ্চার ভাল দাম পাওয়ায় এবছর ধৈঞ্চা চাষের ব্যাপকতা বৃদ্ধি পেয়েছে।
রাণীনগর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি খড়িপ-২ মৌসুমে উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে প্রায় ২ শ’ ২০ হেক্টর জমিতে ধৈঞ্চা চাষ করা হয়েছে। বিগত বছরে ধৈঞ্চার ভাল ফলন এবং চাষযোগ্য জমিতে মাটির স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সবুজ সার হিসেবে ব্যবহার করে ধানের আশানুরুপ ফলন পাওয়ায় এলাকার চাষিরা অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি ধৈঞ্চা চাষ করছে। এক বিঘা জমিতে ধৈঞ্চা চাষে মাত্র ৮শ’ টাকা খরচ হয়। প্রতি বিঘা জমির ধৈঞ্চা প্রায় ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রয় হয় বলে চাষিরা জানান। রাসায়নিক সার ব্যবহার কমিয়ে ধৈঞ্চা চাষে কৃষকদের উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে রাণীনগর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে মৌসুমের শুরু থেকেই উপজেলার ছয়বারিয়া, বগারবাড়ি, পারইল, কুজাইল গ্রাম সহ বিভিন্ন এলাকায় ২০১৬-১৭ইং অর্থ বছরে খড়িপ-২ মৌসুমে রাজস্ব বাজেটের আওতায় স্থাপিত ধৈঞ্চা প্রদর্শনীর মাঠ দিবস, লাইভ পাচিং হিসেবে আফ্রিকান ধৈঞ্চা চাষ ও ব্যবহার বিষয়ে আলোচনা সভা ও কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকদের ধৈঞ্চা চাষ বিষয়ে বিভিন্ন পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা প্রদান করেন, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ এসএম গোলাম সারওয়ার, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার সবুজ কুমার সাহা, উপ-সহকারি আজমা সুলতানা প্রমুখ।

সর্বশেষ সংবাদ