জামালপুরে জেলা যুবলীগ নেতার হাতে পত্রিকার সম্পাদক লাঞ্ছিত

জিটিবি নিউজ ডেস্ক ঃ জামালপুরে যুবলীগের এক নেতার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন স্থানীয় এক দৈনিক পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক। শনিবার জামালপুর সার্কিট হাউজে জেলা প্রশাসকের ইফতার মাহফিলে এই ঘটনা ঘটে।জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় সার্কিট হাউজে জেলা প্রশাসকের আমন্ত্রনে ইফতার মাহফিলে অংশ নেন স্থানীয় দৈনিক আলোচিত জামালপুরের নির্বাহী সম্পাদক কবি সাযযাদ আনছারী। ইফতার মাহফিলে জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম নির্বাহী সম্পাদক সাযযাদ আনছারীরকে প্রথমে বকাবকি করেন এবং পরে তাকে মারধর করার চেষ্টা করেন। এ সময় উপস্থিত সাংবাদিক ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাঈম রহমান পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেন।জেলা প্রশাসকের ওই ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি।কবি ও সাংবাদিক সাযযাদ আনছারী জানান, সম্প্রতি জেলা প্রশাসক তার কাছে ১০টি সাংস্কৃতিক সংগঠনের তালিকা চান। জেলা প্রশাসকের কাছে তিনি ১০টি সাংস্কৃতিক সংগঠনের তালিকাও দিয়েছেন। ওই তালিকায় যুবলীগ নেতা শফিকের পরিচালিত সংগঠনের নাম না থাকায় তিনি ক্ষিপ্ত হন।
জেলা প্রশাসকের ইফতার মাহফিলে সাংবাদিক লাঞ্ছিত হবার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জামালপুর প্রেসকাব। গত শনিবার রাতে জামালপুর প্রেস কাবে এক জরুরি প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রেস কাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। এ সময় সাংবাদিকরা অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণসহ দলীয় সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন জামালপুর প্রেস কাবের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান, কোষাধ্যক্ষ মানবকণ্ঠের সাংবাদিক কাফি পারভেজ, কার্যনির্বাহী সদস্য এশিয়ান টিভির সাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জলিল, কার্যনির্বাহী সদস্য সময় টিভির সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য বাংলাভিশন সাংবাদিক জুলফিকার মো. জাহিদ হাবিব, কার্যনির্বাহী সদস্য আরটিভির সাংবাদিক সুজিত রায়, কার্যনির্বাহী সদস্য বৈশাখী টিভির সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মুক্তা, প্রেস কাবের সহ-সভাপতি (সহযোগী) ময়না আকন্দ, দৈনিক পল্লীীর আলোর বার্তা সম্পাদক জাহাঙ্গীর সেলিম, মাছরাঙা টিভির সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান, ইত্তেফাকের সাংবাদিক হালিম দুলাল, ডেইলি স্টারের সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম লিটন, দৈনিক সংবাদের সাংবাদিক আজিজুর রহমান চৌধুরী, উর্মীবাংলার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।
জামালপুরের জেলা প্রশাসক মো. শাহাবুদ্দিন খান অনাকাঙ্খিত এই ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
প্রবীণ সাংবাদিক, কবি ও সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব সাযযাদ আনছারীকে লাঞ্ছিতকারী যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলামের শাস্তির দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন পল্লীকণ্ঠ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক নুরুল হক জঙ্গী, দৈনিক জামালপুর প্রতিদিনের সম্পাদক অধ্যাপক মো. সুরুজ্জামান, দৈনিক জামালপুর দিনকালের সম্পাদক সাঈদ পারভেজ তুহীন প্রমূখ। জামালপুর উদীচী শিল্পী গোষ্ঠির সাধারণ সম্পাদক পার্থ প্রতিম দে এক বিবৃতিতে এই ঘটনার জন্য নিন্দা জানান এবং ঘটনার সাথে জড়িত যুবলীগ নেতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জামালপুর জেলা শাখার সভাপতি মারুফ আহমেদ খান মানিক ও সাবেক সভাপতি সুমন মাহমুদ ঘটনার সাথে জড়িত যুবলীগ নেতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
জামালপুর প্রেস কাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা ও সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান বলেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক সাযযাদ আনছারীকে লাঞ্ছিতকারী যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে দলীয় ভাবে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়াসহ তার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। তা না হলে জামালপুর প্রেস কাব বৃহত্তর আন্দোলনে যাবার হুমকি দিয়েছেন।জামালপুর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাঈম রহমান বলেন, তাৎক্ষণিক বিষয়টির নিস্পতির চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি এই ঘটনাকে দু:খজনক বলে উল্লেখ করেন।