‘৬৫ শতাংশ পাকিস্তানির ধারণা ভুল পথে যাচ্ছে দেশটি’

বেশ চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এল এক সমীক্ষায়। পাকিস্তানের নাগরিকদের ওপর করা এক সমীক্ষা জানাচ্ছে সেদেশের ৬৫ শতাংশ নাগরিক মনে করেন ২০১৯ সাল থেকেই ভুল পথে যাচ্ছে পাকিস্তান। ফ্রানন্সের এক সমীক্ষক সংস্থা এলপিএসওএস জানাচ্ছে এই তথ্য।

এলপিএসওএস বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম সমীক্ষা সংস্থা। রবিবার পাকিস্তানের নাগরিকদের ওপর করা এই সার্ভে রিপোর্ট প্রকাশ করে তারা। রিপোর্টে জানা গেছে, পাকিস্তানের শহরাঞ্চল ও শহর থেকে প্রতি ১০০০ জনে সমীক্ষা চালানো হয়। ৫০ শতাংশ পুরুষ ও ৫০ শতাংশ নারীকে বেছে নেওয়া হয়, যাদের বয়স ১৮ বছরের ওপরে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে এই সমীক্ষা করে এলপিএসওএস।

সংস্থা জানাচ্ছে, এই সমীক্ষার নাম দেওয়া হয়, ‘Consumer Confidence Survey in Pakistan’, জানা গেছে,

১. প্রতি চার জন পাকিস্তানি নাগরিকের মধ্যে তিনজনই দেশের শাসন ব্যবস্থার ওপর ও সরকারের ওপর অসন্তুষ্ট। তারা মনে করেন সঠিক পথে যাচ্ছে না দেশ। পরিবর্তন দরকার। ২. প্রতি পাঁচ জনের মধ্যে ৪ জন পাক নাগরিক মনে করেন আগামী ছয় মাসে পাকিস্তানের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। ৩. প্রতি চার জনের মধ্যে তিনজন পাকিস্তানের নাগরিকের ধারণা দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা একেবারে তলানিতে ঠেকেছে। ৪. প্রতি পাঁচজনের মধ্যে দু’জন পাকিস্তান নাগরিক মনে করে ব্যক্তিগত ভাবে অর্থনৈতিক দিক থেকে পিছিয়ে রয়েছে তাদের দেশ। ৫. পাকিস্তানিদের সবথেকে বড় দুশ্চিন্তার বিষয় কর্মসংস্থানের অভাব। তার মধ্যে রয়েছে অত্যাধিক মূল্যবৃদ্ধি ও দারিদ্র্য। ৬. পাকিস্তান প্রশাসনের দুর্নীতিও রীতিমতো চিন্তার বিষয় সাধারণ নাগরিকের। পঞ্জাব প্রদেশ, খাইবার পাখতুনখোয়া, সিন্ধ প্রদেশে বিদ্যুতের অভাবও মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। ৭. জীবনযাত্রার খরচ যে হারে বাড়ছে, সে হারে অর্থনৈতিক ভিত্তি নেই পাকিস্তানে। ৮. ২০ জন নাগরিকের মধ্যে মাত্র একজন মনে করেন স্থানীয় ভিত্তিতে অর্থনৈতিক দিক থেকে শক্তিশালী পাকিস্তান। ৯. প্রতি দু’জন নাগরিকে একজন মনে করেন গত বছর থেকে চলতি বছরে তাদের প্রত্যেকের কেউ না কেউ পরিচিত কাজ হারিয়েছেন। ২০১৮ সালের আগস্ট মাস থেকে ২০২০ সালের আগস্ট মাসের মধ্যে ৩১ শতাংশ বেড়েছে এই প্রবণতা।