জাল ওকালতনামা ও স্ট্যাম্পসহ ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জে বিপুল পরিমাণ জাল ওকালতনামা ও কোর্ট ফি লাগানো জাল স্ট্যাম্পসহ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাইসুল আহমেদ রবিনকে গ্রেফতার করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

সোমবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পাশে আইনজীবীদের চেম্বারের গলির ভেতরে নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দোকান থেকে ছাত্রলীগ নেতা রবিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এসময় রবিনের ব্যবসায়িক অংশীদার মিরাজ ওরফে সোহানুর পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় জেলা আইনজীবী সমিতির প্রশাসনিক কর্মকর্তা সাইদুজ্জামান বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

রাইসুল আহমেদ রবিন জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বলে নিশ্চিত করেছেন মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন বলেন, জালিয়াতির অভিযোগ পেয়ে পুলিশ রাইসুল আহমেদ রবিন এবং মিরাজ ওরফে সোহানুরের যৌথ মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘প্রমিস কম্পিউটার ও ফটোস্ট্যাট’ নামে দোকানে অভিযান চালায়। সেখানে তল্লাশি করে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর ও সীলযুক্ত ৫০টি নকল ওকালতনামা এবং কোর্ট ফিসহ ৫৪০টি জাল স্ট্যাম্প জব্দ করা হয়।
তিনি আরো জানান, অভিযানে জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাইসুল আহমেদ রবিনকে গ্রেফতার করা সম্ভব হলেও মিরাজ পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।
গ্রেফতারকৃত রাইসুল আহমেদ রবিন জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বলে নিশ্চিত করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান সময় নিউজকে বলেন, ছাত্রলীগের রাজনীতি করে কেউ অন্যায় করলে এবং দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করলে ছাত্রলীগ এর দায়ভার নেবে না। বিষয়টি জানার পর আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে লিখিতভাবে জানিয়েছে। কেন্দ্রীয় কমিটি যে নির্দেশ দিবে আমরা সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।

তিনি বলেন, জেলা কমিটি ইচ্ছা করলেই কাউকে বহিষ্কার করতে পারে না। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে লিখিতভাবে জানাতে হয়। কেন্দ্র থেকে যা সিদ্ধান্ত দেবে জেলা কমিটি সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কাজ করে থাকে। আশা করি কিছুক্ষণের মধ্যেই তার ব্যাপারে একটা সিদ্ধান্ত আসবে।