খুঁটির জোর কথাই ধর্ষণের মামলা নিয়ে সদ্য বদলী হওয়া তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেনের কান্ড!

সারোয়ার হোসেন, রাজশাহীঃ রাজশাহীর তানোরে ধর্ষণের মামলা নিয়ে তানোর থানা থেকে সদ্য বদলী হওয়া তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে নয়ছয় করার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মোহনপুর উপজেলার সইপাড়া গ্রামের আকবর আলীর ছেলে মোহনপুর সরকারি কলেজের প্রভাষক মিজানুর রহমান মিজান কে ধর্ষণ মামলা থেকে বাঁচাতে মামলার বাদিকে না জানিয়ে মামলার ভূয়া রির্পোট তৈরি করে ফাইনাল দেয়ার জন্য থানার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি কে দেন।
আর মামলার ওই ফাইনাল রির্পোটে বলা হয়েছে, ধর্ষণের দিন আসামি মিজান ঘটনাস্থলে যায়নি ও আসামির ফোন নম্বর বাদির ফোনের সঙ্গে কোন যোগাযোগ নেই। অথচ আসামির ফোন ও বাদির ফোনের সংযোগ সেই দিনই প্রায় ১’শ বার যোগাযোগ হয়েছে বলে কল লিস্ট দেখা যাচ্ছে।
তাহলে কেন তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেন এমন মিথ্যা প্রতিবেদন তৈরি করে ফাইনাল দেয়ার জন্য রির্পোট তৈরি করেছে। কার ইশারায় এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনার মিথ্যা রির্পোট তৈরী জানতে চায় বাদীর পরিবার। নাম প্রকার্শে অনিচ্ছুক একজন জানান, তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেন দেখতে মাহাক্কাল ফল তার উপরে লাল ভিতরে কালো, কিন্তু এমন জঘন্য মিথ্যা প্রতিবেদনটি প্রায় চার লক্ষ টাকার বিনিময়ে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতার ভাই যুবলীগ নেতার সাথে বন্ধুর সম্পর্ক থাকায় তার কথায় এমন চাঞ্চল্যকর মিথ্যা রির্পোট তৈরি করেছে তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেন বলেও গুঞ্জন উঠেছে।
এমনকি ওই নেতার কথায় মামলার ২মাসেও আসামি গ্রেফতারের জন্যে কোন প্রতিবেদন দেয়নি তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেন। এবিষয়ে তানোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রাকিবুল হাসান জানান, বিষয়টি আমি দেখেছি, তবে আমি রির্পোটি এখনো পাঠায় নি, আবার নতুন করে তদন্ত সাপেক্ষে মামলার ফাইনাল পাঠানো হবে বলে তিনি জানান।