তথ্যমন্ত্রীর অপসারণ দাবিতে বগুড়ায় সাংবাদিকদের অবস্থান ধর্মঘট পালন

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে গণমাধ্যমের শত্রু আখ্যা দিয়ে তার অপসারণ দাবি করেছেন বগুড়ায় কর্মরত সাংবাদিক সমাজ। রবিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি থেকে তাঁর অপসারণ দাবি করা হয়। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন(বিএফইউজে) ঘোষিত এই কর্মসূচি পালন করে বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন(বিইউজে)।
অবস্থান ধর্মঘট চলাকালে বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের(বিইউজে) সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টুর সভাপতিত্বে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিইউজের সাধারণ সম্পাদক জে এম রউফের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহসভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য্য শংকর, যুগ্ম মহাসচিব জিএম সজল, নির্বাহী সদস্য ও বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমান, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি এএইচএম আখতারুজ্জামান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল আলম নয়ন, বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিলন রহমান, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের মধ্যে মোহন আখন্দ, নাসিমা সুলতানা ছুটু, সাজেদুর রহমান সিজু, এম সারওয়ার খান প্রমুখ। এসময় সাংবাদিক নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জিয়া শাহীন, প্রদীপ মোহন্ত, বিমু রহমান, আব্দুর রহমান টুলু, সঙ্গীত রায় বাপ্পী, গৌরব চন্দ্র দাস, বাবু বসুধা, এনামুল হক রাঙ্গা, প্রবীর মোহন্ত, বিপ্লব পাটোয়ারি, ইলিয়াস হোসেন, আহম্মেদ উল্লাহ মনু, আরিফ জাহানসহ বগুড়ার প্রিন্ট ও ইলেক্টনিক মিডিয়ায় কর্মরত গণমাধ্যম কর্মিগণ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, বিগত দুই বছর যাতৎ তথ্যমন্ত্রী আলাপ-আলোচনা চালিয়ে গেলেও নবম ওয়েজ বোর্ড ঘোষণার প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছেন। তিনি ছলচাতুরির আশ্রয় নিয়ে কালক্ষেপণ করছেন। এছাড়া তিনি সাংবাদিকদের নিপীড়নের হাতিয়ার আসিটি আইনের ৫৭ ধারার পক্ষে সাফাই গাইছেন। দেশে ব্যাঙের ছাতার মতো অনলাইন গণমাধ্যম ছড়িয়ে পড়লেও সেসব নিয়ন্ত্রণে কোন নীতিমালা প্রণয়ন করতে তিনি সম্মত নন। আর ১৯৭৪ সালে সাংবাদিকদের জন্য প্রণীত আইনটি বিগত জোট সরকার বাতিল করার পর থেকে সাংবাদিক সমাজ তা পুণস্থাপনের দাবি জানিয়ে আসলেও সেটি তিনি করতে উদ্যোগী হননি। এই অবস্থায় সাংবাদিক বিদ্বেষী এমন মন্ত্রীকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে রাখার কোন যৌক্তিকতা নেই। তাই বক্তারা অবিলম্বে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর অপসারণ দাবি করেন।