সন্ত্রাস মাদক ও দারিদ্র মুক্ত দেশ উপহার দিবেন দেশরত্ন শেখ হাসিনা–আসাদুর রহমান দুলু

উত্তরবঙ্গ নিউজ ডটকম.সজিবুল আলম সজিব শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান দুলু বলেছেন, দেশ স্বাধীন করেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আর সন্ত্রাস মাদক ও দারিদ্র মুক্ত দেশ উপহার দিবেন দেশরত্ন শেখ হাসিনা। তাই কোন সন্ত্রাসী, নেশা ও দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনে অনুপ্রবেশের সুযোগ দেওয়া হবে না। তিনি আরও বলেন, দৃঢ়তার সাথে প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, ভিজিডি, ভিজিএফ, প্রতিবন্ধী ভাতা, হিজরা ভাতা ভোগীর সংখ্যা বৃদ্ধিসহ বছরের প্রথম দিনে দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই তুলে দিয়ে বিশ্বে রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন। অপরদিকে ৫ জানুয়ারির মতো নাশকতা এদেশের মানুষ চায় না। তাই আগামী নির্বাচনে দেশবাসি আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবে। বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের ২৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে রোববার বিকেলে বগুড়ার শাজাহানপুরে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।
উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আব্দুল্লাহ্ আল-ফারুকের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ মাস্টারের সঞ্চালনায় সমাবেশে অন্যান্যের বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক তালেবুল ইসলাম, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি নিকুঞ্জ কুমার পাল, যুগ্ম-সম্পাদক ভিপি সাজেদুর রহমান সাহীন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা জুলফিকার রহমান শান্ত, লুৎফুল বারী বাবু, শহীদুল ইসলাম বাপ্পী, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদুল ইসলাম মুক্তা, ফজলুল হক মোল্লা, আবুল কালাম আজাদ বাচ্চু, এম. এ সাত্তার, আব্দুর রশিদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আলমগীর হোসেন, নুরুজ্জামান, হোসেন শরীফ মনির, রুবেল সরকার, জাহাঙ্গীর আলম, শফিকুল ইসলাম, আলমগীর হোসেন স্বপন, আবু হানিফ মিস্টার, শামীম আহম্মেদ, হুমায়ন কবির শাওন, জিয়াউল হক জুয়েল, রাকিবুল ইসলাম রাজু, শিহাবুল ইসলাম, রাজু সিদ্দিকী রনি, ফরিদ উদ্দিন, বুলবুল আহম্মেদ, জেলা ছাত্রলীগ নেতা ফরহাদ হোসেন, মিণ্টু মিয়া, তাতীলীগ নেতা ইজহারুল হক জিহাদ, শামীম, আব্দুল মমিন, আল-আমিন, জাহিদুল, রাসেল, আতিক, ফিরোজ প্রমুখ। বিকেল ৪টায় ব্যান্ড পার্টি, আতশবাজি এবং বেলুন ওড়ানোর মধ্য দিয়ে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে র‌্যালি শুরু হয়। র‌্যালিটি উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে শুরু হয়ে মাঝিড়া বন্দরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বটতলায় এক সমাবেশে মিলিত হয়। র‌্যালি ও সমাবেশে ব্যাপক নেতা-কর্মির উপস্থিতিতে মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। পড়ে থানা পুলিশ এবং দলীয় নেতা-কর্মিদের সহায়তায় যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।