বগুড়া শহরের মাটিডালী হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাদ থেকে পড়ে ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

বগুড়া সদরের মাটিডালী উত্তর পার্শ্বে হক্বের দা’ওয়াত সিদ্দীক্বিয়া হাফেজীয়া মুন্নিয়া মাদ্রাসার ৪তলার ছাদ থেকে পড়ে আব্দুর রহিম (৯) নামের এক মাদ্রাসার ছাত্রের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে। সদরের বারপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামের খোকন মিয়ার পুত্র আব্দুর রহিম (৯), তার দুইজন মেয়ে ও একটি মাত্র ছেলে। গত ১১/১০/২০ ইং তারিখে তার একমাত্র পুত্র আব্দুর রহিমকে মাদ্রাসার ভর্তি করে দেন। সেখানে তাকে ভালভাবে দেখাশুনা করার জন্য প্রতি মাসে খাবার বাবদ ২৫০০ শত টাকা প্রদান করেন। খোকন মিয়া জানান, গত ১৫ই নভেম্বর রবিবার ভোর ৪ টায় ফোন করে মাদ্রাসার হুজুর বলেন যে, আপনি মাদ্রাসায় আসেন এসে শুনতে পান যে তার ছেলে মাদ্রাসার ছাদ থেকে পড়ে নিহত হয়েছে। খোকন মিয়ার ধারণা মাদ্রাসার হুজুরেরা তার ছোট ছেলেকে মারপিট করে হত্যা করেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। এর সঠিক বিচার চান তিনি। সংবাদ পেয়ে সদর থানা পুলিশ মাদ্রাসার দুই জন হুজুর কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায়। তারা সেখানে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে মাদ্রাসার কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। এঘটনার পর মাদ্রাসায় কর্মরত সবাই সাইন বোড নামিয়ে ফেলে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে প্রসাশনের প্রতি জোর দাবী জানিয়ে বলেন, ঘটনার সাথে জরিতদের আটক করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান। এদিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট হস্থান্তর করে। এব্যপারে সদর থানার ওসি হুমায়ন কবিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ময়না তদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত বলা যাবেনা ঐ ছাত্রকে হত্যা করা হয়েছে না নিজেই লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে সেটা এই মুহূর্তে বলা যাবে না।।