তানোরে স্কুল ছাত্রীর শ্লীলতাহানির দায়ে সহকারী গ্রন্থাগারিক অপসারন দাবি

তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোরে ৮ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীর শ্লীলতাহানির দায়ে জিয়াউর রহমান রাজু নামে এক সহকারী গ্রন্থাগারিকের অপসারন দাবিতে সরব হয়েছে। গত মঙ্গলবার সকালে দিকে উপজেলার কচুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।
স্কুলের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানান, মঙ্গলবার (২৫জুলাই) সকাল ৭টার দিকে ওই স্কুলের সহকারী গ্রন্থাগারিক প্রাইভেট পড়ানোর নাম করে ৮ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্ররুমে নিয়ে শ্লীলতাহানি করে। এসময় স্কুলের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা তা দেখতে পেলে ওই শিক্ষক তাদের পরীক্ষায় ফেল করানোর হুমকি দিয়ে শ্লীলতাহানির বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। পরে শ্লীলতাহানির শিকার ওই ছাত্রী তার পরিবারের লোকজনকে জানালে একইদিন বিকেলে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি সমঝোতার চেষ্টা করা হয়।
পরে বৃহস্পতিবার সকালে ওই স্কুলের সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগন স্কুলে সমবেত হয়ে লম্পট শিক্ষক জিয়াউর রহমান রাজুর অপসারনসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে স্কুল বন্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের খবর পেয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে জিয়াউর রহমান রাজু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের রোষানল থেকে বাঁচতে গা ঢাকা দিয়েছে বলে ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আফছার আলী জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে জিয়াউর রহমান রাজুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি পরিস্থিতির শিকার। আমাকে ফাঁসানোর জন্য এ অভিযোগটি আনা হয়েছে।
এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক শফিউর রহমান জানান, তার বিষয়ে মেয়ের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্যদের নিয়ে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।