ব্যাপক লোক সমাগমের মাধ্যে দিয়ে সিলেটে হেফাজতের সমাবেশ অনুষ্টিত

হাফিজুল ইসলাম লস্কর, সিলেট : ‘রাষ্ট্রীয় মদদে’ ফ্রান্সে বিশ্বনবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম সিলেটের উদ্যোগে সিলেটের রেজিস্ট্রারি মাঠে শনিবার (২১ নভেম্বর) বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্টিত হয়েছে।
সমাবেশ শুরুর পুর্বে দুপুর ১২ ঘটিকা থেকেই সমাবেশস্থলে মিছিল সহকারে আসতে শুরু করেন হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। সময় যত গড়িয়েছে ততই বেড়েছে লোকসমাগম। জোহরের নামাজের রেজিস্ট্রারি মাঠ কানায় কানায় পুর্ন হয়ে যায়। ফলে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা রেজিস্ট্রারি মাঠের সামনের সড়কে অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে রেজিস্ট্রারি মাঠের আশপাশ তালতলা, ক্বীন ব্রীজের মুখ থেকে সিটি পয়েন্ট পর্যন্ত সমাবেশ বিস্তৃত হয়।
হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় উপদেষ্ঠা আল্লামা শায়খ জিয়া উদ্দিন (হাফি.) এর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নবনির্বাচিত আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবু নগরী (হাফি.), প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন মহাসচিব আল্লামা নুর হোসেন ক্বাসেমী। এছাড়াও বক্তব্য প্রধান করেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের উপদেষ্টা মাওলানা ওবায়দুল্লাহ ফারুক, মাওলানা রশীদুর রহমান ফারুক পীর সাহেব বরুনা, কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী, নায়েবে আমির মাওলানা নরুল ইসলাম খান, অধ্যাপক আহমদ আব্দুল কাদের, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদীসহ সিলেটের শীর্ষ ওলামায়ে কেরামগন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবু নগরী বলেন, আমি শারীরিক ভাবে অসুস্থ কিন্তু সিলেটের এই বিশাল সমাবেশ দেখে আমি সুস্থ্য হয়ে গেছি। মনে রাখবেন, হেফাজতে ইসলাম কোন রাজনৈতিক সংগঠন নয়। ইসলামের হেফাজত, ইসলামের সকল কর্মসূচিই হেফাজতের কর্মসূচী। যারা আল্লাহ ও তার রাসুল (সা:) এর বিরুদ্ধে কটুক্তি করে তাদের কবর রচনা করতেই হেফাজতের জন্ম হয়েছে। তিনি সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা আপনার শত্রু নই । যে সকল নাস্তিকরা আপনার ঘাড়ে চেপে বসে আসে সেই নাস্তিক মুরতাদ ও কাদিয়ানীরা হেফাজতের শত্রু। এদেশের প্রতিটি মুসলমান, প্রতিটি তরুণ, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা হেফাজতে ইসলামের সদস্য।
তিনি আরো বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর সুরে সুর মিলিয়ে বলতে চাই দেশ চলবে মদীনা সনদ অনুযায়ী। কোন দল বা গোষ্ঠীর এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য হেফাজতের নয়। হেফাজতের উদ্দেশ্য হলো রাসুল (সা:) এর এজেন্ডা বাস্তবায়ন । ইসলাম, ঈমান আক্বীদা রক্ষার কাজ করবে হেফাজত।
আল্লামা বাবুনগরী সিলেটবাসীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা সিলেটবাসী হেফাজতের সাথে থাকেন। তিনি সামবেশের জায়গা নিয়ে বলেন, আমাদের বড় জায়গা দেওয়া হয়নি, ছোট জায়গা দিলে কি হবে আমাদের কলিজাটা অনেক বড়। তিনি সিলেটের সর্বস্তরের তৌহিদী জনতা, ব্যবসায়ী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থা ও সাংবাদিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
সমাবেশকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে সিলেট মহানগর পুলিশ। পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকেও বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য সমাবেশস্থল ও আশপাশে কাজ করেছেন।

সর্বশেষ সংবাদ