তানোরে বিদ্যুৎ বিভ্রাটে অতিষ্ঠ জনজীবন

সারোয়ার হোসেন, তানোর:রাজশাহীর তানোরে বিদ্যুৎ বিভ্রাটে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। আর ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল হয়ে পড়েছেন উপজেলার সাধারন মানুষের জীবনযাত্রা।এতে করে ব্যবসা বাণিজ্যসহ ব্যাহত হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পড়া-লেখা। প্রতিদিনের বিদ্যুতের এই যাওয়া আশা খেলায় ফুঁসে উঠছে এলাকাবাসি। তারা অভিযোগ করে বলছেন আকাশে প্রচন্ড ঝড় বৃষ্টি না থাকলে কেন লোর্ডশেডিংয়ের নাম করে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুতের টেনে রাখছেন পল্লী বিদ্যুত ও পিডিপি। তারা একবার বিদ্যুত টানলে ২ ঘন্টার আগে দেবার কোন খবর থাকেনা। যদি কোন গ্রাহক পল্লী বিদ্যুতের অভিযোগ কেন্দ্রের মোবাইল নাম্বারে ফোন দিয়ে বিদ্যুত দেওয়ার জন্য অনুরোধ তারা সে গ্রাহকদের সাথে কথা বলতে বিরোক্ত মনে করে। বরং একবারের জায়গায় দুই বার ফোন দিলে তাদের নাম্বার কালো তালিকায় রেখে দেয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌর এলাকার বেশির ভাগ জায়গা জুড়ে পল্লী বিদ্যুত ও কিছু আংশে পিডিপি সংযোগ রয়েছে। উপজেলায় পল্লী বিদ্যুতের ৩৬ হাজার গ্রহকের বিপরিতে মোট চাহিদা ১০ মেগাওয়ার্ড ও িিপডিপির ৬ হাজার ৩ জন গ্রাহকের বিপরিতে চাহিদা ২ মেগাওয়ার্ড। বর্তমানে পল্লী বিদ্যুত সরবাহ পাচ্ছে সাড়ে চার মেগাওয়ার্ড ও পিডিপি বিদ্যুত সরবাহ পাছেছে ১ মেগাওয়ার্ড।

এনিয়ে উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামের পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক গোলাম মোস্তফা বলেন, এক মাসের বিল বকেয়া থাকলে অফিসের লোকজন বাড়িতে এসে বিদ্যুত সংযোগ বিছিন্ন করে দেয়। আর বিদ্যুত না থাকার কথা বললে তারা লোডশেডিংয়ের নাম করে পার হয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে বিদ্যুত ২৪ ঘন্টার ৮ ঘন্টা ও থাকেনা। এতে করে ছেলে মেয়েদের পড়া লেখায় চরম অসুবিধা সৃষ্টি হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে তালন্দ বাজারের কম্পিউটার ব্যবসায়ী ইসরাফিল হোসেন জানান, বিদ্যুত না থাকায় ঠিকমত ব্যবসা করা যাচ্ছেনা।

তানোর পল্লী বিদ্যুতের প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম বলেন, বিদ্যুত সরবারাহ কম থাকায় সাময়িক ভাবে এসমস্য সৃষ্টি হয়েছে। তবে কয়েক দিনের মধ্যে এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

তানোর পল্লী বিদ্যুতের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার এ এম শামসুজ্জোহা আনসারীর সাথে মোবাইল ফোনে বার বার যোগাযোগ করা হলে সে ফোন রির্সিভ করেনি।

তানোর আবাসিক প্রকৌশলী আবু সাইদ হেলালী জানান, বিদ্যুত বিভাগের সরবারহ কম থাকায় লোর্ডশেডিংয়ে মধ্যে পড়তে হচ্ছে। সমস্য সমধান হলে বিদ্যুত সরবারহ স্বাভাবিক হবে।