দুপচাঁচিয়ায় সেটেলমেন্ট অফিসের অফিস সহায়কের নিকট চাঁদাদাবী ও টাকা কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ

দুপচাঁচিয়া(বগুড়া) প্রতিনিধিঃ দুপচাঁচিয়া উপজেলার তালোড়া ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক টিপু সহ অজ্ঞাতনামা ৩/৪জনের বিরুদ্ধে উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসের অফিস সহায়ক শামছুন্নাহার বেগম তার নিকট চাঁদাদাবী, টাকা কেড়ে নেওয়া, ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শনের অভিযোগ করেছেন। গত ২৩ নভেম্বর সোমবার দুপচাঁচিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেনের নিকট তিনি এ অভিযোগ করেন।
অভিযোগসূত্রে জানা যায়, গত ১৮নভেম্বর বুধবার উক্ত অফিস সহকারী শামছুন্নাহার নিজ অফিসের নির্দেশক্রমে দুপচাঁচিয়া থানাধীন কইল গ্রামের কইল মৌজার প্রিন্টপর্চা বিতরনের জন্য যায়। প্রিন্ট পর্চা বিতরেনের এক পর্যায়ে অভিযুক্ত টিপু ৩/৪জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অসৎ উদ্দেশ্যে শামছুন্নাহারের কাছে ১০হাজার টাকা চাঁদা দাবী করা সহ সরকারি কাজে বাধা প্রদান করেন। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে অফিস সহকারীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পরক্ষনে ক্ষিপ্ত হয়ে অফিস সহকারীর নিকট থাকা সরকারি তহবিলের নগদ ১হাজার টাকা কেড়ে নিয়ে প্রাণনাশের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
অভিযুক্ত আব্দুর রাজ্জাক টিপু মুঠোফোনে জানান, ওই অফিস সহায়ক প্রিন্টপর্চা বিতরনের সময় সাধারণ মানুষকে হয়রানী করে অতিরিক্ত টাকা আদায় করছিল। এর প্রতিবাদ করায় এবং তালোড়া ইউনিয়নের আগামী নির্বাচনে আমি সম্ভাব্য প্রার্থী হওয়ার ঘোষনা দেওয়ায় সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বি আরেক প্রার্থী ষড়যন্ত্র করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট, হয়রানীমূলক এ অভিযোগ করেছে।
দুপচাঁচিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম জাকির হোসেন অভিযোগ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।