বগুড়ার শেরপুরে ইউপি সদস্যের সহযোগিতায় বাল্য বিয়ে

বগুড়া প্রতিনিধি:বগুড়ার শেরপুরের দড়িখাগা দিঘীরপাড় গ্রামে ইউপি সদস্য ওমর আলীর সহযোগিতায় গত শুক্রবার বিকালে ৭ শ্রেণির ছাত্রীকে বাল্য বিয়ে দেয়ার ঘটনায় গনমাধ্যমকর্মীদের তথ্য সংগ্রহে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
জানা যায়, উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের দড়িখাগা দিঘীরপাড় গ্রামের লাল মিয়ার মেয়ে শৈল্লাপাড়া ডিএন মতিউর রহমান দাখিল মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে একই ইউনিয়নের ছাতিয়ানি পশ্চিমপাড়া গ্রামের সুমর আলীর ছেলে রায়হানের(১৪)সাথে গত শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে খানপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য ওমর আলী প্রসাশনকে ফাকি দিয়ে বাল্য বিয়ের কাজ সম্পন্ন করেন। এদিকে বাল্যবিয়ের ঘটনার খবর পেয়ে গনমাধ্যমকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করার সময় ওই ইউপি সদস্য ওমর আলীর বাধা প্রদান করেন। বর্তমান সরকার বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনাতামূলক নানামুখি কার্যক্রম চালিয়ে আসলেও এ অঞ্চলের জনপ্রতিনিধিরা সরকারের এই প্রচেষ্টাকে মাটির সাথে মিশে দিয়ে তাদের ইচ্ছামত অল্প বয়সের ছেলে-মেয়েদের বিয়ে দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ প্রসঙ্গে ইউপি সদস্য ওমর আলী বলেন- আমি ভোটের রাজনীতি করি ভোটের জন্য মানুষের কাছে যেতে হয়। তাই সব বয়সের ছেলে মেয়েদের বিয়ে দিতে বাধ্য হই। খানপুর ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম রাঞ্জু বলেন- আমার ইউনিয়নে বাল্যবিয়ে হচ্ছে তা আমি আপনাদের কাছ থেকে শুনলাম।
এ বিষয়ে শেরপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোছাঃ মোরশেদা খাতুন বলেন- বিয়ে দিয়ে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।