আইন শৃংখলার অবনতি ॥ চুরি আতংক এলাকাজুড়ে বগুড়ার শেরপুরে দু’সপ্তাহে ১৪ গরু চুরি

বগুড়া প্রতিনিধি:বগুড়ার শেরপুরে আইন শৃংখলার চমর অবনতি হওয়ায় প্রতিনিয়তই ঘটছে চুরিসহ নানা অপরাধের ঘটনা। গত ১৫ দিনের ব্যবধানের ভবানীপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম থেকে ১৪টি চুরির ঘটনা ঘটেছে। এসব দুঃসাহসিক চুরির ঘটনায় সাধারণ মানুষের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।
জানা গেছে, শেরপুর উপজেলার ভবানিপুর ইউনিয়নের আমিনপুর পুরাতন কলোনি গ্রামের সিরাজের ছেলে ফেরদৌসের সংঘবদ্ধ চোরেরা বাড়ির প্রাচীর টপকে গত ২৭ জুলাই রাতের যে কোন সময় গোয়াল ঘরের তালা কেটে ৪ টি গরু নিয়ে যায়। একইভাবে গত ২৯ জুলাই দিবাগত রাতে শিখর গ্রামের হরমুজ আলীর বাড়ি থেকে ৪ টি গরু নিয়ে যায়। এদিকে পরের দিন ৩০ জুলাই রাতে একই গ্রামের সুনীল, মনীল ও নবা’র বাড়ি থেকে ৩টি ব্যাটারি চালিত অটোভ্যান নিয়ে যায়। পরবর্তীতে গত ২ আগষ্ট রাতে চোরেরা উপজেলার দলিল গ্রামের বাহাদুর হাজীর বাড়ীর ভেতরে প্রবেশ করে ৪টি এবং হোসেন আলীর বাড়ী ঘেকে ২ টি গরু নিয়ে যায় ।
গত ৩রা আগষ্ট উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বিরইল গ্রামের মান্নানের বাড়ী থেকে অটোরিক্সার ব্যাটারী ও একই গ্রামের আজিতের বাড়ী থেকে একটি ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা চুরি করে নিয়ে যায় সংঘবদ্ধ চোরেরা। আশংকাজনক হারে চুরি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মানুষ চুরি আতংকে ভুগছে। আইন শৃংখলার অবনতি হওয়ায় গত কয়েকমাসে এলাকায় চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধ আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় এলাকাবাসী চরম আতঙ্কিত হয়েছে বলে জানান এলাকার সচেতন মহল। অন্যদিকে এসব চুরির ঘটনায় ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে লিখিত ও মৌখিক অভিযোগ দেয়া হলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি তারা খোয়া যাওয়া মালামাল উদ্ধার করতেও পারেনি।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ এরফান বলেন অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া চুরি-ছিনতাই রোধে পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে।