ঝিনাইদহে পুর্ব শত্রুতার জেরে প্রকাশ্যে সেচ্ছাসেবকলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ ঝিনাইদহ শহরের আরাপপুর চাঁনপাড়া এলাকায় দিনের বেলায় রোববার দুপুরে দুর্বত্তরা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ফিরোজ হোসেন (৩০) কে কুপিয়ে হত্যা করেছে। স্থানীয় ৮ নং ওয়ার্ড সেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফিরোজ আরাপপুর চাঁনপাড়া এলাকার আনসার আলীর ছেলে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও পুর্ব শত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, রোববার দুপুর দেড়টার দিকে ফিরোজ মটরসাইকেল যোগে ঝিনাইদহ শহরে আসছিলেন। তিনি বাড়ি থেকে চাঁনপাড়া রংধনু প্রি-ক্যাডেট স্কুলের সামনে পৌছালে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা দুুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। তাকে পথচারীরা উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে দুইটার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ রুমন জানান, ঘাড়ের ডান দিকে মারাত্বক ক্ষত সৃষ্টি হওয়ার কারণে রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই ফিরোজের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া তার সারা শরীরেই ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে।

ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু জানান, নিহত ফিরোজ ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা সেচ্ছোসেবকলীগের নেতা। শোনা যাচ্ছে দিপু নামে এক যুবক এ ঘটনার সাথে জড়িত। দিপু আমাদের দলের কোন লোক নয় বলেও সাইদুল করিম মিন্টু দাবী করেন। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, পুর্ব শত্রুতার জের ধরে ফিরোজকে হত্যা করা হতে পারে। আমরা ঘটনার পরপরই খুনিদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছি। ঘাতকদের পায়ের স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, দুই মাস আগে দিপু নামে একটি ছেলেকে মরধর করে তার পা ভেঙ্গে দেয় ফিরোজ। এই বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করা হতে পারে। দিপুর পিতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। অচিরেই খুনের মোটিভ ও ক্লু উদ্ধার করা সম্ভব হবে বলেও ওসি জানান।