গুড়া পৌরসভার বিজয়ী ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবিরাজ তরুন কুমার চক্রবর্ত্তী ফুলে ফুলে সিক্ত হলেন

রেজাউল করিমঃ বগুড়া পৌরসভার নির্বাচনে ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবিরাজ তরুন কুমার চক্রবর্ত্তী বিজয়ী হবার পর মানুষের ভালাবাসায় ফুলে ফুলে সিক্ত হলেন। নির্বাচিত হওয়ার খবর এলাকার মানুষ জানতে পেরে মেতে উঠে আনন্দ উল্লাসে। বিগত সময়ে কাউন্সিলর থাকাকালীন নির্বাচনী ইশতেহার শতভাগ বাস্তবায়নের পরও উপরন্ত কাজ করেছেন। এবারেও বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে নির্বাচনী ইশতেহারে যে সমস্ত ঘোষণা করেছেন এগুলো তিনি শতভাগ বাস্তবায়ন করার পরও আরও এলাকার ভালো ভালো উন্নয়নমূলক কাজ করবেন এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন অভিজ্ঞ মহল। এ মহৎ ব্যক্তির বিজয়ের খবর শোনার পর এলাকার বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার মানুষ হাতে ফুলের মালা নিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে যোগ্য ব্যক্তিকে কখন মালা পড়িয়ে দিয়ে মনের তৃপ্তির পরিসমাপ্তি ঘটাবে। বিজয়ের পর হতে চলমান রয়েছে মানুষের ভালবাসার বহি:প্রকাশ। ফুলে ফুলে সিক্ত করার প্রাক্কালে এসেও মনে পড়ছে করোনাকালীন সময়ের কথা, যখন তাদের দুঃসহ জীবনের ক্রান্তিকালে পাশে দাঁড়িয়েছিলেন এ উদার মানসিকতা সম্পন্ন ব্যক্তিত্ব। হৃদয়ের মানসপটে গেঁথেছে বিজয়ী কাউন্সিলর কবিরাজ তরুন কুমার চক্রবর্ত্তীর নাম। তারই প্রমাণ স্বরূপ ভোট প্রদানের মধ্য দিয়ে বিজয়ী করেছেন এলাকার সর্বস্তরের ভোটারবৃন্দ। কাউন্সিলর কবিরাজ তরুন কুমার চক্রবর্ত্তীর সাথে আলাপকালে জানান, জনগণ আমাকে ভালবেসে ভোট প্রদান করে বিজয়ী করেছেন, এ বিজয়ের মর্যাদা রক্ষা করতে হবে। স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে স্বাধীনতা রক্ষা করা যেমন কঠিন, ঠিক তেমনি, আমি বিজয়ী হয়েছি বাহবা পাওয়ার মত ও নেয়ার মত কিছু নেই। জনগণের শতভাগ নাগরিক সুবিধা প্রদান করতে পারলেই আমার বিজয়ী হওয়ার সার্থকতা খুঁজে পাব। জনগণের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি আমার প্রতি রয়েছে তা যথাযথ বাস্তবায়ন করতে পারলেই এটিই হবে আমার মহানুভবতা ও জনগণ ফিরে পাবে তাদের ভোট প্রদানের সার্থকতা।