বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ

স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দেশের সর্ববৃহত্তম যশোরের শার্শা উপজেলাধীন বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে।

তবে এপথে বাণিজ্যিক কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও দুই দেশেরর মধ্যে পাসপোর্ট যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

বুধবার (১৭ মার্চ) জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও মুজিব বর্ষ পালনে সরকারি ছুটি থাকায় বাণিজ্যিক কার্যক্রম দিনভর বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বেনাপোল বন্দরের আমদানি-রফতানি সমিতির সহসভাপতি আমিনুল হক জানান, বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে সরকারি ছুটি থাকায় বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কোন পণ্য আমদানি হচ্ছে না। বেনাপোল বন্দর দিয়েও ভারতে রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পুনরায় কার্যক্রম শুরু হবে।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দর সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, প্রতিবছর এদিনটিতে বাংলাদেশের কাস্টমস ও বন্দর বন্ধ থাকায় পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকে।

বেনাপোল স্থলবন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক (ট্রাফিক) আব্দুল জলিল জানান, ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে সরকারি ছুটির কারণে আমদানি-রফতানি বন্ধসহ বন্দর অভ্যন্তরে পণ্য ওঠা-নামাও বন্ধ রয়েছে। বন্দরে যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, সরকারি ছুটিতে আমদানি,রফতানি বন্ধ থাকলেও দুই দেশের মধ্যে পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।

এদিকে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকায় দুই পারের বন্দরে প্রবেশ অপেক্ষায় সহস্রাধিক পণ্যবাহী ট্রাক আটকা পড়েছে। এসব পণ্যের মধ্যে শিল্পকারখানার কাঁচামাল, গার্মেন্টস, তৈরি পোশাক, পাট জাত পণ্য, কেমিক্যাল ও খাদ্যদ্রব জাতীয় পচনশীল পণ্য রয়েছে।