শহীদ মোখলেছুর রহমান বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি-৯৯ ব্যাচের ঈদ পুনর্মিলনী

হৃদয়ের মেলবন্ধন, ভালোলাগার অনুভূতি, আনন্দঘন পরিবেশে মানস পটে ভেসে উঠা স্মৃতিগুলোর বহিঃপ্রকাশের মধ্য দিয়ে শনিবার দিনব্যাপি বগুড়ার শাজাহানপুরের ডেমাজানিতে শহীদ মোখলেছুর রহমান বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ব্যাচ-৯৯ এর ঈদ পুনর্মিলনী উৎসব এক প্রাণের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আব্দুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠানের প্রবীণ কৃতি ছাত্র একেএম আসাদুর রহমান দুলু।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন,‘‘দেখিতে গিয়াছি পর্বতমালা, দেখিতে গিয়াছি সিন্ধু, দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়ে, ঘর হতে দু‘পা ফেলিয়ে, একটি ধানের শিষের উপরে একটি শিশির বিন্দু’’। অর্থ্যাৎ আমরা প্রতিনিয়ত সহযোগিতা করে থাকি বিভিন্নভাবে বিভিন্ন এলাকায়। এতে আমার এলাকায় বঞ্চিত হতে পারে। স্ব-স্ব অবস্থান থেকে নিজ এলাকা নিজ গ্রাম ও নিকট আত্মীয়-স্বজনকে সহযোগিতা করলে দেখা যাবে কেহই বঞ্চিত হবে না। ফলে গোটা দেশে অভাবগ্রস্থ মানুষের সংখ্যা আরো লাঘব হবে। এ প্রাচীনতম ও ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানের এসএসসি ব্যাচ-৯৯ যে উদ্যোগ গ্রহন করেছে তা মহৎ ও প্রশাংসার দাবী রাখে। প্রতিষ্ঠানের শুরু হতে অদ্যাবধি সকল এসএসসি ব্যাচের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে পুনর্মিলনী ও প্রাণের মিলন মেলা শুরু হলে এটি প্রতিষ্ঠানের জন্য হবে রোল মডেল, যা শুধুমাত্র বিশাল জনসমুদ্রে পরিণত হবে না শেকড় হতে শিখরে পৌঁছাতে সক্ষম হবে। এ বিশাল জনগোষ্ঠীর একটু খানি সহযোগিতা প্রতিষ্ঠানের পিছিয়ে পড়া প্রবীন শিক্ষার্থীদের স্বচ্ছলতা এনে দিতে পারে। এটি বাস্তবায়নে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন প্রবল ইচ্ছা শক্তি। একজন ভাল ও আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়তে ইচ্ছা শক্তির বিকল্প নেই।

তিনি আরো বলেন, ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছিল। পরবর্তীতে দেশটির বেহাত দশা হলেও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঠিক নেতৃত্ব দ্বারা দেশটি ঘুরিয়ে দাঁড়িয়েছিল এবং তাঁরই উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব দ্বারা দেশটি বিশে^র নিকট মাঁথা উঁচু করে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছে। এ দেশ এখন আর ফকির-মিসকিনদের দেশ নয়, এ দেশ সুজলা-সুফলা, শষ্য-শ্যামলা, খাদ্যে স্বয়সম্পূর্ণ ও উন্নয়নশীল দেশ। বর্তমান সরকার ভিশন-২১ ও ৪১ বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর।
বিশেষ করে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে আমাদের প্রত্যেককে কাজ করতে হবে। যে জাতি যত শিক্ষিত ও দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ সে জাতি তত উন্নত। আমাদের মাঝে দেশ প্রেম গড়তে হবে। স্ব-স্ব ধর্মের ধর্মীয় শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দেয়ার পাশাপাশি উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ এজন্য দলমত নির্বিশেষে একযোগে কাজ করতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আমরুল ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান অটল, ডেমাজানি সরকারি ইসলামিয়া টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ শরিফুল তারিক মাসুম, শাজাহানপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিন্টু মিয়া।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শাজাহানপুর উপজেলা সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবুল বাশার, শিক্ষাবিদ জিল্লুর রহমান, নজরুল ইসলাম, আব্দুল আজিজ, শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোতাহার হোসেন মিজু প্রমুখ।

গৌরবের ২২ বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এসএসসি ব্যাচ-৯৯ এর কৃতি ছাত্র কৃষি কর্মকর্তা, শিক্ষাবিদ ও অন্যান্য পেশায় সম্পৃক্ত ব্যক্তিবর্গ আনন্দঘন পরিবেশে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন।
অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত, ফুলেল শুভেচ্ছা, মৃত শিক্ষক-ছাত্রের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপনসহ দেশ জাতি ও সকলের জন্য বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

 

 

সর্বশেষ সংবাদ