বগুড়া সোনাতলায় আ’লীগের দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

স্টাফ রিপোর্টার : বগুড়ার সোনাতলায় স্থানীয় সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে  পুলিশ চার রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করেছে।  বুধবার বিকেল থেকে সন্ধ্যার পর পর্যন্ত দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা চলে।

জানাগেছে,  বুধবার বিকেলে সোনাতলা উপজেলা আওয়ামীলীগের নব গঠিত কমিটি যৌথ বর্ধিত সভা আহবান করে দলীয় কার্যালয়ে। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান। বিকেল ৫ টার দিকে সভা শুরু হলে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেনের নেতৃত্বে একদল নেতা কর্মী দলীয় কার্যালয় লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে বর্ধিত সভা ভন্ডুল হয়ে যায় এবং আওয়ামীলীগের দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। খবর পেয়ে সোনাতলা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু দুইপক্ষের নেতা কর্মীরা মারমুখি হয়ে এক গ্রুপ আরেক গ্রুপের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের বাহিরে চলে গেলে পুলিশ টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিন্ত্রনয়ে আনে।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন বলেন, তিনি কর্মী সমর্থকদেরকে সাথে নিয়ে তার ব্যক্তিগত অফিসে বসেছিলেন। এমন সময় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মিনহাদুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে কিছু লোকজন তার অফিসের হামলা করে। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। তিনি আরো বলেন করোনার কারনে রাজনৈতিক সভা সমাবেশ নিষিদ্ধ রয়েছে। সেখানে বর্ধিত সভার নামে দলীয় কার্যালয়ে সমবেত হয়েছিল আমার অফিসে হামলা  করার জন্য।
সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম  বলেন আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে চার রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করা হয়েছে।