শাজাহানপুরে এক শিক্ষকের পরিবারকে ৪ দিন যাবত অবরুদ্ধ করে রেখেছে স্বার্থান্বেষী মহল

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: আম পাড়া নিয়ে মারামারির জের ধরে বসত বাড়ির চারপাশে বেড়া দিয়ে এক শিক্ষকের পরিবারকে ৪ দিন যাবত অবরুদ্ধ করে রেখেছে স্থানীয় স্বার্থান্বেষী মহল। ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার খরনা ইউনিয়নের বড়তিতখুর গ্রামে। শিশু ও নারীসহ ৫ সদস্যের পরিবারটি বন্দী জীবন কাটাচ্ছে। বন্দীদশা থেকে মুক্তি পেতে স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা কামনা করেছে অসহায় পরিবারটি। এসব ঘটনায় শাজাহানপুর থানায় পৃথক তিনটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে।
পরিস্থিতির শিকার বড়তিতখুর গ্রামের মৃত আব্বাস আলী প্রামাণিকের ছেলে পোয়ালগাছা মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের মৌলানা শিক্ষক আলহাজ¦ আবু বক্কর সিদ্দিক জানিয়েছেন, প্রতিবেশি জয়নাল আবেদীনের স্ত্রী সেলিনা বেগম তার সদ্য নির্মিত বিল্ডিং বাড়ির ছাদের উপর দিয়ে অবৈধ ভাবে বৈদ্যুতিক তার টেনেছে। গত বুধবার দুপুরে বিল্ডিংয়ের ছাদের উপর কাপড় শুকাতে যান তার স্ত্রী মোর্শেদা বিবি (৪৫)। সেখানে গিয়ে দেখেন ছাদের উপর দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে বৈদ্যুতিক তার টানানো হয়েছে। এমতাবস্থায় প্রতিপক্ষকে বৈদ্যুতিক তার সরিয়ে নিতে বললে তারা তাকে গালিগালাজ করে। একপর্যায়ে শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিক ও ছেলে মওদুদী বিদ্যুতের তার সরাতে গেলে তারের ধাক্কায় পাশে থাকা গাছ থেকে কয়েকটি আম ঝরে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে মারামরির ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের ২-৩জন আহত হয়। মারামারির ঘটনায় ওই দিনই শাজাহানপুর থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের হয়। আবু বক্কর সিদ্দিক আরও বলেন, তার নিজ নামে কেনা ৫৯ শতক আয়তনের একটি পুকুরের দখল নিয়ে স্থানীয়দের সাথে তার দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছে।
পৃথক পৃথক ভাবে দায়ের করা অভিযোগ গুলোর বিষয়ে থানা পুলিশ তদন্ত শুরু হয়েছে। এমতাবস্থায় ওই এলাকার একটি স্বার্থান্বেষী মহল একজোট হয়ে গত শনিবার সকালে শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিকের বিল্ডিং বাড়ির চারপাশে বেড়া দিয়ে পরিবারটিকে অবরুদ্ধ করে ফেলে। বিগত ৪ দিন যাবত শিক্ষক পরিবারটি অবরুদ্ধ রয়েছে। অপরদিকে মারামারি ঘটনার প্রতিপক্ষ সেলিনা বেগমের স্বামী জয়নাল আবেদীন তার অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে মওদুদী গত বুধবার জয়নালের গাছের আম পাড়ে। তার স্ত্রী সেলিনা বেগম আম পাড়তে নিষেধ করলে মওদুদী গালাগালি করে। একপর্যায়ে মওদুদী ও তার বাবা আবু বক্কর সিদ্দিক সেলিনা বেগমকে অমানবিক শারিরীক নির্যাতন করে। এতে সেলিনা বেগম জ্ঞান হারালে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়। অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা শাজাহানপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) আরিফুল ইসলাম জানিয়েছেন, ৫৯ শতক আয়তনের একটি পুকুরের দখল ভোগ নিয়ে শিক্ষক আবু বক্কর সিদ্দিকের সাথে স্থানীয়দের বিরোধ রয়েছে। জয়নালের স্ত্রী সেলিনার সাথে মারমারির ঘটনাকে পুঁজি করে শিক্ষক পরিবারটিকে কোনঠাসা করতে পুকুরের দখল নিয়ে বিরোধীতাকারীরা একজোট হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে। যা উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
আমপাড়া নিয়ে মারপিটে মহিলা আহত হওয়ার বিষয়টি অবগত আছেন উল্লেখ করে শাজাহানপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ আহমেদ জানিয়েছেন, একজন নারীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার ঘটনা নারী নির্যাতন ও নারীর প্রতি সহিংসতা। আবার কোন পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখাটাও মানবাধিকার লংঘন। এমন ঘটনা ঘটে থাকলে যে যতটুকু অপরাধ করেছে তার জন্য তাকে শাস্তি ভোগ করতে হবে। অপরাধকে ছোট করে দেখার কোন সুযোগ নাই।

সর্বশেষ সংবাদ