বগুড়া ওয়াইএমসিএ এর উদ্যোগে অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বগুড়া ওয়াইএমসিএ এর কার্যনির্বাহী সদস্যদের আর্থিক সহযোগিতায় শনিবার অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সংস্থার নির্বাহী পরিচালক অধ্যক্ষ রবার্ট রবিন মারান্ডির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সভাপতি এ্যাডভোকেট বার্নাড তমাল মন্ডল। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, আর্তমানবতার সেবায় ব্রতী হলে মনুষ্যত্বের হবে সার্থক বিকাশ। সেবা মানুষের স্বাভাবিক প্রবৃত্তি। সেবা জীবনের ধর্ম অমরত্ব লাভের সোপান। পরোপকারের মধ্যেই রয়েছে মানব ধর্ম। কোভিড-১৯ এর প্রাদূর্ভাবে মানুষ যখন বিপর্যস্ত তখন সরকারের পাশাপাশি মানবতার সেবায় আমাদেরও এগিয়ে আসা উচিৎ। এটিকে মনে প্রানে লালনের মধ্য দিয়ে কার্যনির্বাহী সদস্যগণ এ ধরণের উদ্যোগ গ্রহন করেছেন। দুখি ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো তাদের সঙ্গে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলার মত ছোট ছোট উপকারে ব্রতী হওয়ার মধ্যে মনুষ্যত্বের প্রকাশ ঘটে। দুখি মানুষের দুঃখ মোচন বিপন্নজনের মাঝে সেবার হাত বাড়িয়ে দিয়েই স্রস্টার অবারিত স্পর্শ অনুভব করা যায়। মানব প্রেমই ঈশ্বর প্রীতির প্রকৃত পথ এবং মানবতার সাধনায় শ্রেষ্ঠ প্রার্থনা। অনাথ, অসহায়, দুস্থ, বিপদগ্রস্থ মানুষ বিত্তশালী মানুষের সাহায্য প্রত্যাশা করে থাকে। এটি অবশ্যই দুস্থদের জন্য যৌক্তিক।
তিনি কবির ভাষায় আরো বলেন, “জগৎ জুড়িয়া এক জাতি আছে সে জাতির নাম মানুষ জাতি, এক পৃথিবীর স্তন্যে লালিত, একই রবি-শশী মোদের সাথী”। আমাদের জাতীয় জীবনে গঠনমূলক কাজে উৎকৃষ্ট উদাহরণ সৃষ্টি করতে হবে। সকলকে দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ করেই জাতীয় উন্নয়নের জন্য গঠনমুলক পদক্ষেপ নিতে হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন তখন এ দেশের হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান, মুসলমান সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দিয়ে এ দেশ স্বাধীন করেছে। এটিতে স্পষ্ট প্রতিয়মান ধর্মের বিভেদ ভুলে গিয়ে বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর উপকার করার নামই মানবসেবা। পরোপকারের মহান ব্রতে মানুষের মন উদ্দীপ্ত হয় এবং এর মাধ্যমে যে আনন্দ পাওয়া য়ায় তা সমাজ জীবন হয়ে উঠে সুন্দর।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংস্থার কোষাধ্যক্ষ জেমস, ডাঃ সুদিপ্ত দেওয়ারী, কার্যনির্বাহী সদস্য মিঃ সৌরভ বিশ্বাস, সাথী বিশ্বাস, লিপি সরকার, মনি ভদ্র, অর্পনা প্রামানিকসহ প্রমুখ।
শেষে প্রধান অতিথি অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।