পরিচালক-প্রশাসন ও অর্থ যুগ্ম সচিব পরিদর্শন করলেন পলাশবাড়ী ফায়ার সার্ভিস ভবন

পলাশবাড়ী (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ী ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স ভবন পরিদর্শন করলেন ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের (পরিচালক-প্রশাসন ও অর্থ) যুগ্ম সচিব মো. হাবিবুর রহমান।
উদাবোধনের প্রায় তিন বছর পর শনিবার (২৯ মে) দুপুর ১২টায় ভবন পরিদর্শনকালে এসময় উপস্থিত ছিলেন, ফায়ার স্টেশন এন্ড সিভিল ডিফেন্স রংপুর বিভাগীয় উপ-পরিচালক ওহিদুল ইসলাম, গাইবান্ধা ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক এনামুল হক, পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুজ্জামান নয়ন, গাইবান্ধা গণপূর্ত বিভাগের সাব-এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (ইলেক্ট্রিক) রোকোনুজ্জামান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ার গাউসুল আজম রতন, এসডিই শহিদুরজ্জামান ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিবৃন্দ।
এরআগে পলাশবাড়ী স্টেশন অফিসার ইনচার্জ সায়েদ মো. ইমরানের নেতৃত্বে একটি টিম যুগ্ম সচিবকে আনুষ্ঠানিক গার্ড অফ অর্নার প্রদান করা হয়। পরিদর্শনকালে তিনি আগামী ৫ জুন স্টেশনটির কার্যক্রম চালু করা করা হবে বলে নিশ্চিত করেন।
উল্লেখ্য; ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন হতে এক ভিডিও কনফারেন্সের সাধ্যমে পলাশবাড়ীসহ সারাদেশে ২৫ টি স্টেশন একইসাথে আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করেছিলেন। ভবনটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছিল গত ২০১৪ সালের জুলাইয়ে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে গণপূর্ত বিভাগের বাস্তবায়নে স্টেশনটির নির্মাণ কাজ পেয়েছিল ঢাকার মোহাম্মদপুর হুমায়ুন রোডের মেসার্স ঈসান এন্টারপ্রাইজ নামক প্রতিষ্ঠানের কর্ণধর সাইফুর রহমান।
নির্মাণকাজ শুরুর প্রায় ৭ বছর এবং প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের প্রায় তিন বছর পর অবশেষে পলেস্তার আর রংয়ের আস্তরে ছোট-বড় বিভিন্ন ত্রুটি-বিচ্যুতি মাথায় নিয়ে আগামী ৫ জুন সার্বিক কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। প্রথমতঃ ১ কোটি ৬৬ লাখ টাকা এবং পরবর্তিতে অতিরিক্ত আরো ২০ লাখ টাকাসহ ২ কোটি ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে স্টেশনটি নির্মাণ করা হয়। উদ্বোধনের পর হতেই স্টেশনটি খাতা-কলমে চালু রয়েছে বলে জানা যায়।
মূলত; ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এবং বাস্তবায়ন সংস্থা গণপূর্ত বিভাগের স্ব-স্ব স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে রশি টানাটানিতে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু সম্ভব হয়নি। নানা জটিলতায় পলাশবাড়ী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি এতদিন চালু করা সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্র-পত্রিকাসহ অনলাইনে সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।
উদ্বোধনের পরপরই স্টেশনটির বিপরীতে যানবাহন এবং ২৪জন কর্মী ছাড়াও যাবতীয় যন্ত্রপাতি গাইবান্ধা, পীরগঞ্জ, মিঠাপুকুর ও গোবিন্দগঞ্জসহ বিভিন্ন ফায়ার স্টেশন সমূহে ডিপোটেশনে ন্যস্ত করা হয়। ৫ জুন থেকে সামগ্রিক সবকিছুই পলাশবাড়ী ফায়ার স্টেশনে নিয়োজিত থাকবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়।

 

সর্বশেষ সংবাদ