কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাংক কর্মকর্তা স্বামীকে নিয়ে দুই নববধূর টানাটানি

সাইফুর রহমান শামীম কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: এক ব্যাংক কর্মকর্তা বরকে নিয়ে দুই নববধুর মাঝে টানাটানি সংঘটতি হয়েছে। এ ব্যাপারে দুই নববধুর পক্ষের লোকজনের মাঝে হাতাহাতরি ঘটনাও ঘটেছে। স্থানীয়রা দুই পক্ষকে শান্ত করে ওই বর ও দুই নববধুকে আটক রেখে বিষয়টি সুরাহা করার উদ্যোগ নেন। বিষয়টি নিয়ে গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বৈঠকে বসলে বৈঠক বসার আগেই উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গিয়ে এক নববধূসহ বরকে শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার বঙ্গসোনাহাট ইউনয়িনের উত্তর ভারতের ছড়া গ্রামে। স্থানীয়রা জানান, ওই গ্রামের মৃত ময়েন উদ্দিনের ছেলে জনতা ব্যাংক ভূরুঙ্গামারী শাখার ক্যাশ কর্মকর্তা ছানোয়ার হোসেন গত বৃহস্পতবিার (২৯জুলাই) রাতে ভূরুঙ্গামারী সদর ইউনয়িনের আব্বাস আলীর মেয়ে আশানুল আঁখিকে বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসেন। শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেলে ওই নববধুকে (আখি) কে ভূরুঙ্গামারীতে শ্বশুর বাড়িতে যাওয়ার মুহূর্তে উপজেলার আন্ধারীঝাড় ইউনয়িনের খামার আন্ধারীঝাড় এলাকার আয়নাল হকের মেয়ে আইরিন ছানোয়ারের স্ত্রী দাবী করে তার বাড়িতে আসেন। এ সময় ছানোয়ারের পরিবার এবং আখির আত্মীয় স্বজনের সাথে আইরিনের সাথে আসা বাবা ও আত্মীয় স্বজনের সাথে বাক বিতণ্ডা বাধে। এদিকে ছানোয়ারকে নিয়ে দুই বধুর টানা হেচরা শুরু হয়। আখির আত্মীয় স্বজন ছানোয়ারকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যেতে চায়। অপরজন টেনে নামাতে চায়। খবর পেয়ে ভূরুঙ্গামারী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। ভূরুঙ্গামারী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন সরকার জানান, আমরা কয়েকজন গিয়ে ছানোয়ার ও আখি কে উদ্ধার করে নিয়ে আসি। সেখানে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। আমার জানামতে ছানোয়ারের সাথে আখির বিয়ে এক বছর আগে রেজিস্টারি হয়েছে। ভূরুঙ্গামারী থানার পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, স্ত্রীর দাবী করা দুইজনই ব্যাংক কর্মকর্তা ছানোয়ারের স্ত্রী। একজনকে চলতি বছরের মার্চে এবং অপরজনকে জুলাই মাসে বিয়ে করেছেন। এটা তাদের পারিবারিক বিষয়। এ বিষয়ে কোনো পক্ষেই এ পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ করেন নি

সর্বশেষ সংবাদ