ভ্যাকসিন ছাড়াই সুঁই পুশ, সেই সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক বরখাস্ত

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে ভ্যাকসিন ছাড়াই সুই পুশ করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক সাজেদা আফরিনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

মঙ্গলবার (০৩ আগস্ট) জেলা সিভিল সার্জন আবুল ফজল মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন খান সময় নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, রোববার (১ আগস্ট) সকালে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ২ নম্বর বুথে টিকা দিচ্ছিলেন হাসপাতালের সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক সাজেদা আফরিন।

এ সময় সাজেদা আফরিন টিকা গ্রহণকারীদের শরীরে শুধু সুই পুশ করে ভ্যাকসিন প্রবেশ না করিয়ে সিরিঞ্জ ফেলে দিচ্ছিলেন। এ সময় ঘটনাটি এক যুবকের নজরে আসলে বিষয়টি হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও)  ডা. শামিমকে জানানো হয়।

পরে তিনি পরিত্যক্ত সিরিঞ্জগুলো বাছাই করে ২০টি সিরিঞ্জের ভেতর সম্পূর্ণ ভ্যাকসিনের উপস্থিতি দেখতে পান। পরে সুই পুশ করা হলেও ভ্যাকসিন শরীরে প্রবেশ করানো হয়নি বলে নিশ্চিত হন ওই চিকিৎসক।

অভিযুক্ত সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক সাজেদা আফরিনকে জিজ্ঞাস করা হলে তিনি বলেন, হাসপাতালে অনেক মানুষকে টিকা দিতে গিয়ে অনিচ্ছাকৃতভাবে এই ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি। পরে আরএমও বিষয়টি জানালে ওইদিনই তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দ্রুত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন জেলা সিভিল সার্জন।

কমিটি ঘটনার সত্যতা পেয়ে জেলা সিভিল সার্জনের কাছে জমা দিলে জেলা সিভিল সার্জন বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য বিভাগে প্রতিবেদনটি পাঠিয় দেন। প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ সন্ধ্যার পর স্বাস্থ্য বিভাগ অভিযুক্ত সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক সাজেদা আফরিনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছেন।

এ ঘটনায় উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও কর্মরত চিকিৎসকদের প্রতি আস্থা হারিয়েছেন সাধারণ মানুষ। এ ব্যাপারে সকল কর্মকর্তারই নজরদারিসহ আরও সচেতন হওয়ার দাবী উপজেলাবাসীর।

জেলা সিভিল সার্জন আবুল ফজল মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন খান বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। আমি বিষয়টি জানার পরে ওইদিনই তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে দিয়েছিলাম। আজ সকালে প্রতিবেদন হাতে পেয়েই বিভাগীয় দপ্তরে পাঠিয়েছিলাম। সন্ধ্যার পর জানা গেছে অভিযুক্তকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।