এই সাহায্য দিয়া কটা দিন ভালভাবে খ্যাতে পারমু” শুকরিয়া আদায়

পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ-নওগাঁর পত্নীতলায় উপজেলায় ২৫০ অসহায় ও অতিদরিদ্র পরিবারে ত্রাণ সহায়তা দিল কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। শুক্রবার( ৬ জুলাই) জেলা পরিষদ ডাকবাংলো চত্বরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন শুভসংঘের সদস্যরা।ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে উপস্থিত হয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দলু গাফ্ফার ও পত্নীতলা উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসার সহকারী কমিশনার( ভূমি) সানজিদা সুলতানা বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপের ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করার জন্য তারা কালের কণ্ঠ শুভসংঘকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানায়। বিশেষ করে ধন্যবাদ জানান বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যানকে, তিনি দেশের প্রতি জেলার অসহায় মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন।
এই ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে আরো উপস্থিত ছিলেন পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আলম শাহ্ , মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজাতুল কোবরা মুক্তা, কালের কণ্ঠ শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামান, কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি ফরিদুল করিম, শুভসংঘ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মাহাদী আশরাফ, নজিপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, পত্নীতলা – ধামইরহাট প্রতিনিধি হারুন আল রশিদ, শুভসংঘের পত্নীতলা উপজেলা সভাপতি রক্তের ফেরিওয়ালা এ জেড মিজান , সাধারন সম্পাদক তাসরিফ হোসেন সম্পদ প্রমুখ।
বসুন্ধরা গ্রুপের ত্রাণ সহায়তা নিতে এসেছেন আবুল হোসেন। বার্ধ্যকের জন্য কেউ তাকে কাজ দেন না। আক্ষেপের সুরে তিনি বলেন, আমি কোনো কাম করবা পারি না। ধান লাগানো কাজে নেয় না। বসি বসি থাকা লাগে। ছেলেরা বিয়া করে আলাদা হয়ে গেছে। ছেলেও কোনো টাকা দেয় না। অতি কষ্টে আছি আমি। তোমাদের সাহায্য দিয়া কটা দিন সুন্দরভাবে খেতে পারমু। আমারে যে সাহায্য করছে সে ভালো থাক সেই দোয়া করি।স্বামী পরিত্যাক্ত পিয়ারা বেগম নামের এক উপকারভোগী বলেন, আল্লায় বসুন্ধরা গ্রুপের মালিকের ওপর রহমত দেক। তাকে বেহেশত দেক। তার ত্রাণ দিয়া কয়দিন খাইতে পারবো। অনেক অনেক শুকরিয়া করি।

সর্বশেষ সংবাদ