ভিজিএফের অর্থ আত্মসাৎ,ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

সাইফুর রহমান শামীম, কুড়িগ্রাম।‌কুড়িগ্রামের উলিপুরে ভিজিএফের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গুনাইগাছ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ খোকাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।
রোববার (০৮ আগস্ট) স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব স্বাক্ষরিত চিঠিতে তাকে সাময়িক বরখাস্তের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। আজ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এটি প্রকাশ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত মে মাসে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে গুনাইগাছ ইউনিয়ন পরিষদে ৬ হাজার ১৭৮ হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ৪৫০ টাকা করে ২৭ লাখ ৮০ হাজার ১শ টাকা ভিজিএফের বরাদ্দ আসে। গত ১৩ মে বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চেয়ারম্যান ৩ হাজার ১৫০ পরিবারের মাঝে টাকা বিতরণ করেন। বাকি ৩ হাজার ২৮ পরিবারের ১৩ লাখ ৬২ হাজার ৬শ টাকা চেয়ারম্যান তার নিজস্ব ব্যাংক হিসাব নম্বরে গচ্ছিত রাখেন।
ভিজিএফের টাকা হতদরিদ্রদের মাঝে ঈদের আগে বিতরণ না করে চেয়ারম্যান তার নিজের হিসাব নম্বরে জমা রাখার অপরাধে ও সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ওই দিন (১৩ মে) উলিপুর থানায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
পরে জেলা প্রশাসক স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ধারা ৩৪ (৪) (খ) ও (ঘ) অপরাধ সংঘটিত করায় ৩৪ (১) অনুযায়ী ওই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেন। এরই প্রেক্ষিতে ৮ আগস্ট স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. আবু জাফর রিপন পিএএ স্বাক্ষরিত পত্রে তাকে সাময়িক বরখাস্তের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি গুনাইগাছ ইউপি চেয়ারম্যানকে সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তাকে গ্রেফতার করার সময় ওই ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান গঠন করা ছিল না। তাই আমরা ডিসি অফিসে চিঠি দিয়েছি প্যানেল চেয়ারম্যান গঠন করার জন্য। এখন পর্যন্ত প্যানেল চেয়ারম্যান গঠনের কোন চিঠি আমরা পাইনি।
এ ব্যাপারে গুনাইগাছ ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ খোকা জানান, এ বিষয়ে কোন পত্র পাইনি এবং সাময়িক বরখাস্ত হওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই।