টিকা না নেওয়ায় পৌরসভার কর্মচারীদের বেতন বন্ধ করে দিয়েছেন মেয়র

ছামিউল ইসলাম আরিফ, হিলি প্রতিনিধি। সারাদেশে ইউনিয়ন ও পৌরসভা পর্যায়ে সরকার করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গণটিকা কার্যাক্রর্ম শুরু করে। এরই আলোকে দিনাজপুর হাকিমপুর পৌরসভার সব কর্মচারীকে টিকা নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন পৌর মেয়র জামিল হোসেন । টিকা না নেওয়ায় পৌরসভার কর্মচারীদের বেতন বন্ধ করে দিয়েছেন মেয়র। এছাড়াও গণটিকা কার্যক্রমের পর জনগনকে টিকার কার্ড প্রদর্শন করে সেবা প্রদান করা হবে বলে ঘোষনা দেন তিনি।
দিনাজপুর সিভিল সার্জন এর তথ্য মতে, দিনাজপুর জেলায় ১০৩ টি ইউনিয়নে ১০৩ টি এবং ৫টি পৌরসভায় ৪৮ টি কেন্দ্র খোলা হয়। ইউনিয়ন কেন্দ্র গুলোতে ৬’শ জন এবং পৌরসভা কেন্দ্রগুলোতে ২’শ জন করে মোট ৭১ হাজার ৪’শ জনকে টিকা দেয়ার কর্মসূচী নেয়া হয়। কিন্তু জেলায় গত ৪ আগস্ট ভ্যাক্সিন আসে ৪৪ হাজার এবং বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যে আসে আরো ৩০ হাজার। গত ৭ আগস্ট এ জেলায় ৪৩ হাজার ১’শ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে হাকিমপুর পৌসভার মেয়র জামিল হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, টিকা না নেওয়ার কারণে ইতোমধ্যে এ পৌরসভায় কর্মচারীদের বেতন সাময়িক ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যারা টিকা নিয়েছেন তাদের বেতন দেওয়া হচ্ছে। সরকার ইউনিয়ন ও পৌরসভা পর্যায়ে জনগণ যাতে টিকা নিতে পারেন সেজন্য গণটিকা কায্যক্রম শুরু করেছে। গণটিকা কায্যক্রম শেষ হলে পৌরসভায় সেবা গ্রহণ করতে এলে টিকার কার্ড প্রদর্শন করতে হবে। অন্যথায় সেবা প্রদান করা হবেনা।
মেয়র আরো বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমরা প্রথম ধাপে পৌরসভাতে ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ কা্য্যক্রম চালূ করা হয়েছিল। এবার গনটিকা দেওয়ার পরে আরেকটি কায্যক্রম চালু করা হবে সেটি হলো ‘নো করোনা টিকা সার্টিফিকেট নো সার্ভিস’। এটি আগে থেকেই বলা হচ্ছে। অল্পদিনের মধ্যেই একায্যক্রম চালু করা হবে।