বগুড়া জেলা বিএনপির নতুন আহবায়ক বাদশা যুগ্ম আহবায়ক মোশারফ এমপি কমিটিতে রদবদলঃ

স্টাফ রিপোর্টার:বগুড়ায় বিএনপির পুনর্গঠনের কাজ শেষ না হতেই দলের জেলা আহবায়ক কমিটিতে রদবদল করা হয়েছে। বগুড়া জেলা বিএনপির নতুন আহবায়ক করা হয়েছে দলটির জেলা কমিটির সাবেক সভাপতি ও স্থানীয় পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম বাদশাকে।বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত ১৩ নভেম্বরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি পুনর্গঠনের ওই কথা জানানো হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটিতে যুগ্ম আহবায়কের আরও একটি পদ সৃষ্টিসহ সদস্য পদে নতুন করে দু’জনকে অন্তর্ভূক্ত করে ৩৫ সদস্যের কমিটি গঠনের কথা বলা হয়েছে।বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বগুড়া জেলা বিএনপির পুনর্গঠিত আহবায়ক কমিটিতে তৃতীয় যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেনকে। এছাড়া বিএনপির শেরপুর উপজেলা নেতা শহিদুল ইসলাম বাবলুকে ৩৪ নম্বর এবং একই সংগঠনের বগুড়া সদর উপজেলা কমিটির সাবেক সভাপতি মাফতুন আহমেদ খান রুবেলকে ৩৫ নম্বর সদস্য করার কথা বলা হয়েছে।তবে বগুড়া জেলা বিএনপির পুনর্গঠন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার আগেই আহবায়ক পদে পরিবর্তন নিয়ে দলটির নেতা-কর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই বলছেন, সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের নেতৃত্বে আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্মেলনের মাধ্যমে জেলা বিএনপির নতুন কমিটি গঠনের কাজ এগিয়ে নেওয়া হচ্ছিল- এমন সময় ওই পদে পরিবর্তন ভুল বার্তা দেবে।অবশ্য বগুড়ায় জেলা বিএনপির একাধিক সিনিয়র নেতা নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেছেন, সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ একজন বড় ব্যবসায়ী। ব্যবসায়িক কারণে ব্যস্ততা বেড়ে যাওয়ার তিনি বগুড়ায় দলকে সময় দিতে পারছিলেন না। তবে সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্র জানায়, তাকে খুব শিগগিরই দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ একটি পদে দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে বলে তারা জানতে পেরেছেন। সে কারণেই বগুড়া জেলা আহবায়ক কমিটিতে এমন রদবদল করা হয়েছে। এর আগে বগুড়া সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ ২০১৯ সালের ১৫ মে থেকে জেলা বিএনপির আহবায়কের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। সেই আহবায়ক কমিটিতে দু’জন যুগ্ম আহবায়কসহ মোট ৩১জন সদস্য ছিলেন। পরবর্তীতে আরও একজনকে কো-অপ্ট করা হয়। কমিটির শীর্ষ পদে রদবদলের কারণ জানতে চাইলে বগুড়া জেলা বিএনপির নতুন আহবায়ক ও পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম বাদশা বলেন, ‘আমি দলের এই সিদ্ধান্তের কথা শুনেছি। আমি সবাইকে নিয়ে কাজ করে যাব।’ বগুড়া জেলা বিএনপির প্রথম যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা জেলা বিএনপির পুনর্গঠনের কাজ অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছি। ১০৯টি ইউনিয়ন ও ১২টি পৌরসভার মধ্যে মধ্যে ৬৬টিতে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠিত হয়েছে। তবে আহবায়ক কমিটি পুনর্গঠিত হলেও আমাদের সাংগঠনিক কাজে কোন ব্যাঘাত ঘটবে না।’তবে আহবায়কের পদ থেকে অব্যাহতি পাওয়া বগুড়া সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ দলের ওই সিদ্ধান্তকে ইতিবাচক বলে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা বিএনপির কর্মী। দলের সিদ্ধান্ত আমাদের মেনে চলতে হবে। আমাদের মূল লক্ষ্য হলো বিএনপিকে শক্তিশালী করা। আমরা সেই কাজ করে যাচ্ছি। তাছাড়া এখানে যাকে আহবায়কের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সে আমার হাতের তৈরি। আশাকরি তার নেতৃত্বে বগুড়ায় বিএনপি তার কাংক্ষিত লক্ষ্যে এগিয়ে যাবে।’