জিম্বাবুয়ে ফেরত দুই নারী ক্রিকেটার করোনা পজিটিভ

বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব শেষে জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফেরার পর বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের দুই খেলোয়াড় করোনাভাইরাস পজিটিভ হয়েছেন। যে কারণে পুরো দলকেই রাজধানীর একটি হোটেলে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপের মূলপর্বে জায়গা করে নেওয়ায় সোমবার (৬ ডিসেম্বর) পুরো দলকে সংবর্ধনা দেওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি)। এ উপলক্ষে বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন আজ সোনারগাঁও হোটেলে এসেছিলেন। কিন্তু দুই ক্রিকেটারের করোনা শনাক্ত হওয়ার খবরে সব অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। সোমবার দুপুরের দিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের একাধিক সূত্র দুই নারী ক্রিকেটারের করোনা পজিটিভ হওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তবে তারা কেউই সে দুই সদস্যের নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি। শুধু জানিয়েছেন, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পরবর্তী ব্যবস্থা নেবে বোর্ড। বাছাইপর্ব শেষে গত ৩০ নভেম্বর দেশে ফেরে নারী ক্রিকেটাররা। তবে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ নিশ্চিত করে দেশে ফিরেও উৎসবের সুযোগ পাচ্ছে না নিগার সুলতানা জ্যোতিরা। আফ্রিকার দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন। এদিকে, ভাইরাসটির কারণে জিম্বাবুয়েতে আটকে পড়া নারী ক্রিকেটারদের দেশে ফেরা নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছিল। আফ্রিকার সঙ্গে একে একে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করছে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ। তবে বিমান যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় জিম্বাবুয়ে থেকে চাটার্ড ফ্লাইটে নামিবিয়া এবং ওমানের রাজধানী মাসকাটে পৌঁছায় নারী ক্রিকেট দল। সেখান থেকে সরাসরি ফ্লাইটে বুধবার (৩০ নভেম্বর) সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায় তারা। আফ্রিকার দেশ জিম্বাবুয়েতে ওমিক্রনের প্রকোপ আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বাংলাদেশ নারী দলের জন্য। এর ফলে অবসান হয়েছে দীর্ঘ অপেক্ষার। আইসিসির র‌্যাঙ্কিংয়ে ৫ নম্বরে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। আর এ কারণেই ওয়ানডে বিশ্বকাপের মূল পর্বে প্রথমবারের মতো জায়গা করে নিল সালমা খাতুন, জাহানারা আলমরা।