নন্দীগ্রামে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী রক্তাক্ত

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার নন্দীগ্রামে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী রক্তাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেল আনুমানিক সাড়ে ৩ টারদিকে উপজেলার ৩নং ভাটরা ইউনিয়নের কুমিড়া পন্ডিতপুকুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী আব্দুর রাজ্জাক জানান, ৩নং ভাটরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহেল বাকি কুমিড়া পন্ডিতপুকুর বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসে টাকার হিসাবনিকাশ করতে ছিলো। এমন সময় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মোরশেদুল বারীর ভাই মাহফুজুর রহমানের নেতৃত্বে শতাধিক সমর্থক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আব্দুল্লাহেল বাকির ওপর হামলা চালায়। এ হামলার ঘটনায় আব্দুল্লাহেল বাকি গুরুতর আহত হয়েছে। এতে তার শরীর রক্তাক্ত হয়ে যায়। একপর্যায়ে হামলাকারীরা তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। ভাংচুর ঘটনায় ২টি মোটরসাইকেল, ১টি এসি ও ১টি টিভিসহ আসবাপত্র তছনছ হয়ে গেছে। এছাড়াও তার ব্যবসার ৮লাখ টাকা লুট হয়ে গেছে বলে তিনি দাবি করে। এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমি খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয়পক্ষকে শান্ত করে এসেছি। ওই ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোরশেদুল বারীর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সেসময় আমি বগুড়ায় ছিলাম। শুনেছি আমার লোকজন কুমিড়া পন্ডিতপুকুর বাজারে পোস্টার লাগাতে গেলে আব্দুল্লাহেল বাকিসহ তার লোকজন আমার লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এতে আমাদের ২জন আহত হয়েছে। আব্দুল্লাহেল বাকির সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমি আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসে যখন হিসাবনিকাশ করতেছিলাম সেসময় পূর্বপরিকল্পিতভাবে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। আমাকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে আঘাত করে রক্তাক্ত করে দিয়েছে। তারা আমার নগদ ৮লাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে।