ফেসবুকের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ১৫ হাজার কোটি ডলারের মামলা

যুক্তরাষ্ট্রে এবং যুক্তরাজ্যে অবস্থানকারী বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গা শরণার্থী বিদ্বেষপূর্ণ বার্তা ছড়ানোর অভিযোগে ফেসবুকের বিরুদ্ধে ১৫ হাজার কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করেছেন। তারা অভিযোগ করে বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক যার এখন প্রাতিষ্ঠানিক নাম মেটা মিয়ানমারে নির্যাতন এবং জাতিগত সহিংসতার শিকার রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ও বিদ্বেষ ছড়ানো মূল ক্ষেত্র ছিল। এতে প্রায় ১০ হাজারের মত রোহিঙ্গা মুসলমানকে নির্বিচারে হত্যা করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। সেই সঙ্গে লক্ষ লক্ষ মানুষ দেশ ত্যাগে বাধ্য হয়। এদিকে এমন মামলার প্রেক্ষিতে এখনো ফেসবুক কোন প্রতিক্রিয়া জানায়নি। এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বছরের পর বছর ধরে বিদ্বষপূর্ণ এবং ভয়ংকর ভুল তথ্য ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ্যে আইন বিষয়ক প্রতিষ্ঠান যেটি ওই রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রতিনিধিত্ব করছে ফেসবুককে একটি চিঠি লিখেছে। যেটি বিবিসি প্রত্যক্ষ করেছে বলে জানিয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের আইনজীবীরা সান ফ্রানসিসকোতে একটি অভিযোগে দায়ের করেছেন। ওই অভিযোগে বলা হয়েছে ফেসবুক “দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একটি ছোট দেশের বাজারে ভালভাবে ঢুকবার জন্য রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জীবন বলি দিতে পর্যন্ত প্রস্তুত ছিল”। মিয়ানমারে দুই কোটির বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছে। দেশটিতে অনেকের জন্যই এই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমটি খবর পাওয়ার এবং দেয়ার প্রধান অথবা একমাত্র মাধ্যম।