মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিক্ষার্থীদের বেড়ে উঠতে হবে-এসপি সুদীপ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি-মঙ্গলবার সকালে বগুড়া পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রাঙ্গনে বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী ও মুক্তিযুদ্ধ শীর্ষক তিনদিন ব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি বগুড়ার পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী বিপিএম। পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহাদৎ আলম ঝুনুর সভাপতিত্বে আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুর রশিদ, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির উত্তরাঞ্চলীয় ব্যুরো প্রধান হাসিবুর রহমান বিলু, বগুড়া প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জেএম রউফ, অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন সুলতানা, কলেজ শাখা শিক্ষক প্রতিনিধি শহিদুল ইসলাম, স্কুল শাখা শিক্ষক প্রতিনিধি আনজুয়ারা খাতুন, আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আহবায়ক গৌরাঙ্গ কুমার সাহা, সদস্য ফেরদৌস আলম, এনামুল জাহিদ তিতাস, আল আমিন, আবু সাঈদ, অমৃত লাল সরকার, তাজুল ইসলাম, ওয়ায়েছ কুরুনী মুন, সেলিম রেজা সহ অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।
আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথি বগুড়ার পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী বিপিএম বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিক্ষার্থীদের বেড়ে উঠতে হবে। বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী পালিত হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ ছিল এদেশের মানুষের মুক্তি সংগ্রামের ডাক। সেই ডাকে বাঙালী জাতি যার যা ছিল তা নিয়ে পাকিস্তানী হানাদার বাহীনির বিরুদ্ধে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ অংশ নিয়েছিল লাখো বাঙালী। সেই মুক্তিসংগ্রামে ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে ও হাজারো মা-বোনের সম্ভমের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এদেশের মানুষকে স্বাধীনতা দিয়েছেন। তার কন্যার হাতধরে আমরা অর্থনৈতিক মুক্তির দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের সকল শিক্ষার্থীকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বুকে লালন করে এদেশের সকল কর্মকান্ডে নিজেকে নিয়োজিত করতে হবে। স্বাধীন বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীতে সকলকে এদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের রুখে দিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এই বগুড়াতেও সম্মুখযুদ্ধে অংশ নিয়েছে সাহসী বাঙালীরা। হানাদার বাহিনীকে রুখে দিতে শহীদ হয়েছেন অনেকে। তাই সকলকে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আগামীর সোনার বাংলা গড়ায় স্বতঃফুর্ত অংশ গ্রহন করতে হবে।
অপরদিকে এদিন বেলা ১২টায় বগুড়া পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ শাহাদৎ আলম ঝুনুর সভাপতিত্বে আলোচনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুর রশিদ। অনুষ্ঠানের আহবায়ক প্রভাষক নাছিমা খাতুনের পরিচালনায় বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সহকারী প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন সুলতানা, কলেজ শাখা শিক্ষক প্রতিনিধি শহিদুল ইসলাম, স্কুল শাখা শিক্ষক প্রতিনিধি আনজুয়ারা খাতুন, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক রাহাত আরা বেগম, ফেরদৌস আলম, প্রভাষক অপূর্ব কুমার মজুমদার, প্রভাষক আবুল বাসার, প্রভাষক মাহমুদুল হাসান মামুন, খ ম মাহমুদুল হাসান, আবু তাহের, ফুলবর রহমান, শামীম আলম। আলোচনা সভায় এসময় অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।