বিইউজে’র আলোচনা সভায় বক্তারা সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে রুখতে হবে

বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিইউজে) আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন- ভাষা আন্দোলনের একর্থে ছিলো পাকিস্তানি সাম্প্রদায়িক ও মৌলবাদী আগ্রাসন। তাদের সেই চেতনার অনুসারীরা এখনো এদেশে সক্রিয়। তাদের অপতৎপরতা রুখতে হলে সাংস্কৃতিক আন্দোলনকে বেগবান করতে হবে। বাঙালির সংস্কৃতিই হলো বাংলাভাষা ভিত্তিক। পরিশুদ্ধ বাংলা চর্চার মধ্যদিয়েই এই আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। মহান একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে সোমবার বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিইউজে) এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বেলা সাড়ে ১১টায় আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টু। বিইউজে’র সাধারণ সম্পাদক জে এম রউফের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি ও বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন, বিইউজে ও বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমান, সিনিয়র সাংবাদিক সমুদ্র হক, কমলেশ মোহন্ত সানু, শফিউল আযম কমল, বিধান চন্দ্র সিংহ, আলমগীর হোসেন, খায়রুল আহসান, আজিজ আহমেদ রুবেল, রাজু আহম্মেদ, আহম্মেদ উল্লাহ মনু প্রমুখ। বক্তারা বলেন- ভাষা আন্দোলনের ৭০ বছর এবং স্বাধীনতার ৫০ বছর অতিক্রম করলেও সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন নিশ্চিত করা যায়নি। অবিলম্বে এবিষয়ে উদ্যোগ নিতে হবে। বক্তারা বগুড়ায় জাতীয় চেতনার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ শহীদ মিনার নির্মাণ প্রক্রিয়া বন্ধ রাখায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন- দ্রুততম সময়ের মধ্যে বগুড়াবাসীর প্রাণের দাবি শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ না নিলে বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন ও বগুড়া প্রেসক্লাব যৌথ উদ্যোগে শহীদ মিনার নির্মাণ শুরু করবে। এর আগে দিবসের সূচনালগ্ন রবিবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে বগুড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিইউজে সদস্যবৃন্দ। (খবর বিজ্ঞপ্তির)