বিশ্বে এলো করোনার নতুন ধরন এক্সই

ব্রিটেনেরস্বাস্থ্য সুরক্ষা সংস্থা (ইউকেএইচএসএ) জানিয়েছে, করোনার অতিসংক্রামক ধরনওমিক্রনের নতুন উপজাত পাওয়া গেছে। ‘এক্সই’ নামের এই উপজাতটি ওমিক্রনের আদিরূপ থেকেঅনেক বেশি সংক্রমাক হতে পারে বলে প্রাথমিক লক্ষণে প্রমাণ মিলেছে। নতুনএই ধরন প্রথমবার শনাক্ত হয়েছে ইংল্যান্ডেই। এক ব্যক্তির দেহে করোনার বেশ কয়েকটিধরন সংক্রমিত হবার পর রূপ বদলে নতুন উপজাতটি তৈরি করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাওশনিবার নতুন এই উপজাত অনেক বেশি সংক্রমাক হতে পারে বলে সতর্ক করেছে। ব্রিটিনেরস্বাস্থ্য সুরক্ষা সংস্থা জানিয়েছে, তারা মূলত ওমিক্রনের তিনটি উপজাত এক্সডি,এক্সই, ও এক্সএফ খুঁজে পেয়েছেন। এদেরমধ্যে এক্স্বই ধরনটি ওমিক্রনের সবচেয়ে বেশি সংক্রামক বিএ ওয়ান উপজাতের হাইব্রিডএকটি ধরন। এটি ফ্রান্স ডেনমার্ক ও বেলজিয়ামে সক্রিয় আছে। সংস্থাটিবলছে, ওমিক্রন রূপের বিএ.১ এবং বিএ.২ উপপ্রজাতির সংমিশ্রণের ফলেই ‘এক্সই’ রূপটির উৎপত্তি।আর সে কারণেই তাদের যতো চিন্তা। কারণ, প্রাথমিক লক্ষণে দেখা যাচ্ছে, এটি ওমিক্রনেরপ্রথম দুইটি রূপের থেকে কমপক্ষে দশগুণ বেশি সংক্রামক। এখানেবলে রাখা ভালো, ওমিক্রনের বিএ.১ এবং বিএ.২ উপপ্রজাতির কারণেই গোটা বিশ্বেই খুবদ্রুত গতিতে করোনা ভাইরাসের তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছিলো। নতুন রূপ এক্সই ব্রিটেনেপ্রথম ধরা পরে গত জানুয়ারি মাসে। এখন পর্যন্ত ৬০০ এক্সই সংক্রমণের ঘটনা পাওয়াগেছে। নতুনধরন এক্সই নিয়ে এতো উদ্বেগের কারণ কি? ইউকেএইচএসএজানিয়েছে, এক্সই ধরনটি বেশ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। ২২ মার্চ পর্যন্ত ইংল্যান্ডে এইধরনের সংক্রমিত ৬৩৮ জন ব্যক্তিকে পাওয়া গেছে। তারা এই ধরনটির নমুনা পরীক্ষা করেদেখতে পেয়েছেন, এক্সই প্রায় ১০ গুণ বেশি সংক্রমাক। তবে সংস্থাটি বলছে, একই আসলে কতোটা ভয়ংকর গতিতে ছড়াতে পারবে, সেটি নিশ্চিতহতে আরো সময় লাগবে। এখন পর্যন্ত এই ধরনটির ৩৯টি নমুনার জিনোম সিকোয়েন্স করা হয়েছে।অন্যদিকে এক্সএফ উপজাত নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার গবেষকদের ধারণা, সংক্রমণ ক্ষমতা প্রবল হলেওকরোনাভাইরাসের নয়া রূপটির মারণক্ষমতা ওমিক্রনের মতোই বেশ কম। তবে অতি দ্রুত গতিতেছড়িয়ে পরলে সংক্রমণ সংখ্যা বেড়ে স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় চাপ তৈরি করতে পারে।
উল্লেখ্য,ওমিক্রনের বিএ.২ উপজাত বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সংক্রামক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। তার আগে পাওয়া ওমিক্রন রূপের বিএ.১ উপপ্রজাতিটিও যথেষ্ট সংক্রামক ছিল।তবে সংক্রামক হিসেবে সবাইকে নাকি ছাপিয়ে যাবে এক্সই। এমনটাই দাবি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা‌র। আমেরিকায়সাম্প্রতিক সংক্রমণের বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ওমিক্রনের বিএ.২ উপজাতকে দায়ী করা হচ্ছে।যুক্তরাজ্যেও নতুন করে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। ২৬ মার্চের আগের সাত দিনে দেশটিতে ৪৯লাখ কোভিড রোগী শনাক্ত হয়েছে, তা তার আগের সাত দিনের থেকে ছয় লাখ বেশি। এছাড়াওচীন ও দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন করে বাড়ছে করোনার সংক্রমন। গত কয়েক মাস ধরে কোভিডের গ্রাফনিম্মমুখী হওয়ায় কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছিল গোটা দুনিয়া। নতুন প্রজাতির ভাইরাসেরখোঁজ মিলতেই আবারও দুশ্চিন্তার ভাঁজ বিশ্ববাসীর কপালে।

সর্বশেষ সংবাদ