আজ বৃহস্পতিবার ঐতিহাসিক মহাস্থান গড়ে বৈশাখী উৎসব

সাজু মিয়া শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ আজ বৃহস্পতিবার ঐতিহাসিক মহাস্থানগড়ে বৈশাখী উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। গত দু’বছর মহামারী করোনার কারনে সীমিত আকারে উৎসব হলেও এবার জমজমাট উৎসব উদযাপন হবে বলে স্থানীয়দের আশা । মহান অলি হযরত শাহ্সুলতান মাহমুদ বলখী (র:) ইতিহাসকে স্মরন করে প্রতি বৎসর বৈশাখমাসের শেষ বৃহস্পিবার এখানে বিনা প্রচারনায়, বিনা দাওয়াতেএকদিন এক রাতের জন্য বিশাল মিলন মেলায় পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে। হযরত শাহসুলতান ও পশুরাম এর ইতিহাসকে ঘিরে প্রতিবৎসর বৈশাখী মাসের শেষ বৃহস্পতিবার এই উৎসব উদ্যাপিত হয়ে থাকে। ইতিমধ্যে ফকির সন্ন্যাসীরা মহাস্থান গড়ে আগমন শুরু করেছে।প্রতি বছর মেলার দিনটিতে এখানে লক্ষ লক্ষ মানুষের ঢলনামে কিন্তু এবার বৃষ্টি ও বৈরী আবহাওয়ার কারনে লোক সমাগম কম হবে বলে স্থানীয়রা মনে করেন। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা শত শত মন ঐতিহ্যবাহী শুকনা খাবার কটকটি বৈশাখী মেলা উপলক্ষে মজুদ রেখেছেন। গত দু বছর ব্যবসায়িরা করোনার কারনে তেমন ব্যবসা করতে পারেনি। কিন্তু এবার বিধি নিষেধ না থাকায় ব্যবসা ভালো হবে যদি আবহাওয়া অনুকুলে থাকে আর এ কারনে ব্যবসায়িদের মধ্যে আশার সাথে এবার উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। বাউল ফকির দরবেশ আর সন্ন্যাসীরা সারাদিন-রাত মারুফতি জারী সারি গানে মগ্ন থাকবে। অন্যদিকে মুসল্লিরা সারারাত জেগে ইবাদত বন্দেগি করবেন। এদের সংখ্যাও এবার কম লক্ষ করা যাচ্ছে। অনুষ্ঠান সুষ্ট ও শান্তিপুর্ণ ভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা।প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ উপলক্ষে গত সোমবার মহাস্থান মাজার এলাকায় সুধি সমাবেশ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে কুলসুম সম্পা’র সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ রিজু, সহকাুরি পুলিশ সুপার (শিবগঞ্জ সার্কেল ) তানভীর হাসান,ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিগন। সভায় বক্তারা বলেন ঐতিহাসিক মহাস্থান গড় একটি পূর্ণভূমি । এর পবিত্রতা রক্ষা করা সকলের নৈতিক দায়িত্ব। এদিন কোন প্রকার গাঁজা, হেরোইন, ফেন্সিডিল, লটারী, জুয়া সহ কোন প্রকার মাদক সেবন ও বিক্রি করতে দেওয়া হবে না,আইন শৃংখলা রক্ষার জন্য পোশাক ধারী পুলিশ, ভ্রাম্যমান ম্যাজিষ্টেট,সাদা পোশাক ধারী ৫৪২ জন আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যগন সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবেন।শান্তিপূর্ণ ভাবে শেষ বৈশাখ উৎসব পালনে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। এব্যাপারে অফিসার ইনচার্জ (শিবগঞ্জ থানা) দীপক কুমার দাস বলেন, মহাস্থান মাজার ও মসজিদ এলাকায় শুধু ধর্মীয় অনুষ্ঠান ছাড়া অন্য কিছু হতে দেয়া হবে না।এর পবিত্রতা রক্ষা করার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।