বগুড়ায় বেকারী শিল্পে কাঁচামাল পণ্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিশেষ সভা

আমার স্বপ্নের বাংলাদেশ। এ নিসর্গটি আমার নিত্যদিনের, আমার স্বপ্নের। এ স্বপ্নের রুপসী বাংলায় গাঢ় সবুজের বুকে লাল সুর্য আঁকা চির গৌরবের দীপ্তিময় পতাকা। এ পতাকাকে ভালোবেসে দেশপ্রেমকে আঁকড়ে ধরে মজুদদারদের কর্তব্যই হবে পণ্যের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি না করা। বিশেষ করে এক শ্রেণীর মুনাফালোভীরা বেকারী শিল্পে কাঁচামাল পণ্যের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে দাম বৃদ্ধির ফলে হুমকির মুখে ফেলেছে এ শিল্পকে। এ শিল্পকে হুমকির মুখ হতে ফেরাতে বগুড়া ব্রেড-বিস্কুট এন্ড কনফেকশনারী মালিক সমিতির সদস্যরা একত্রিত হয়ে গতকাল শনিবার দুপুরে শহরের কাজী নজরুল ইসলাম সড়ক সংগঠন কার্যালয়ে এক বিশেষ আলোচনায় মিলিত হন।
সংগঠনের সভাপতি আকবরিয়া লিমিটেড চেয়ারম্যান হাসান আলী আলাল এতে সভাপতিত্ব করেন। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, এ সংগঠনকে শক্তিশালী করার মধ্য দিয়ে আমাদের সমস্যা সমাধান করতে হবে। মানব জীবনই হচ্ছে সমস্যার ক্ষেত্র। এ ক্ষেত্রকে ঐকান্তিক চেষ্টা, আলোচনা, সঠিক দিক নির্দেশনা ও সবার পরামর্শে সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজে বের করতে হবে। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির ফলে আয়ের সঙ্গে ব্যয়ের সংগতি থাকে না। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীগণ আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে ওঠে এবং সমাজে নানা অবক্ষয়ের উদ্ভব ঘটে। এদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রত্যেককেরই সোচ্চার হতে হবে। দেশের সার্বিক উন্নয়নের জন্য দ্রব্যমুল্যের বৃদ্ধি প্রতিরোধকল্পে সকলকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, পণ্যের দ্রব্যমূল্য মনিটরিং, খুচরা ও পাইকারি মূল্য তালিকা টানানো বাধ্যতামূলক করতে হবে। ভোক্তাদের নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে আমাদের যেমন দায়িত্ব রয়েছে অনুরুপ তেল, চিনি, ময়দা, বেকারী পণ্যের মূল্য স্বাভাবিকসহ, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ভ্যাট ইনকাম ট্যাক্স, ব্যবসা সংশ্লিষ্ট সকল ধরনের লাইসেন্স ফি স্থিতিশীল রাখা উচিত।
এ সময় বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা ব্রেড বিস্কুট এন্ড কনফেশনারী মালিক সমিতির সহ-সভাপতি বায়েজিদ শেখ, রেজাউল করিম, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক ইমদাদ, উপদেষ্টা তপন কুমার চক্রবর্ত্তী, লিয়াকত আলী, আলী আজম, সাইদুর রহমান, মিরাজ, আব্দুর রাজ্জাক, জুলফিকার আলী, বিপ্লবসহ অর্ধশতাধিক মালিক ও প্রতিনিধিবৃন্দ।