শাজাহানপুরে ৯ দিনের ব্যবধানে ৩টি লাশ উদ্ধার

সজিবুল আলম সজিব শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:বগুড়ার শাজাহানপুরে মাত্র ৯ দিনের ব্যবধানে তরুণীসহ ৩টি লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। এর মধ্যে তরুণীর পরিচয় পাওয়া যায়নি।
গত ৬মে উপজেলার শাকপালা এলাকা থেকে মেহেরুল ইসলাম ওরফে মেরু(৩৮) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। মেরু শাকপালা বন্দরে সাইকেল মেকানিকের কাজ করত। নন্দীগ্রাম উপজেলার ভাটরা ইউপি ডামরুল গ্রামের বাসিন্দা হলেও দীর্ঘদিন থেকে তিনি শাকপালা এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে পরিবারসহ বসবাস করে আসছিলেন। মেরু নিয়মিত মাদক সেবন ও এলাকায় ছোট-খাট চুরি করতেন বলে স্থানীয়রা জানায়। চোরের দোহাই দিয়ে স্থানীয় কয়েক দুর্বৃত্ত মেরুকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যা করে। তবে এ হত্যাকান্ড নিয়ে এলাকার মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পিতা হবিবর রহমান বাদী হয়ে ৫ জনকে এজাহারনামীয় ও ৩/৪জনকে অজ্ঞাত করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই দিনই মামলার ৪নং আসামী রাজু(২৮) কে পুলিশ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত রাজু শাকপালা এলাকার আবু তালেবের পুত্র। এ হত্যাকান্ডের ৫ দিনের মাথায় ১১ মে দুপুর সাড়ে ১২ টায় শাকপালা এলাকার মুন্সিপাড়া বাঁশবাগান ডোবা থেকে ফের শফিকুল ইসলাম(৩৬) নামের এক নাপিতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত শফিকুল ইসলাম ৯ মে সন্ধার পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন। লাশ উদ্ধারের ২৪ ঘন্টার মধ্যেই এ হত্যার রহস্য উম্মোচনসহ মূল আসামী ওই এলাকার মাসুদ রানা(২০)কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। বাঁশবাগানে মাদক সেবনকালে কথা কাটাকাটির জের ধরে মাদক আড্ডার সঙ্গী মাসুদের হাতেই খুন হয় শফিকুল । নিহতকে ছুরিকাঘাত ও গলাকেটে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী নাসিমা বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি অজ্ঞাত হত্যা মামলা দায়ের করে। সর্বশেষ গত ১৪ মে সকাল ১০ টায় আশেকপুর হিন্দুপাড়া(কালিবাড়ি) বাঁশঝাড় থেকে ১৮ বছর বয়সের এক সুন্দরী তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। দুই দিন অতিবাহিত হলেও ওই তরুণীর পরিচয় এখনো মেলেনি। তরুণীর মৃতদেহে গলায় ফাঁস লাগানো ও শরীরের জখমের চিহৃ দেখা গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে থানায় একটি অজ্ঞাত হত্যা মামলা দায়ের করেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কৈগাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক সৈকত হাসান জানান, নিহত মেরু ও শফিকুল হত্যার রহস্য উম্মোচন হয়েছে। হত্যার সাথে অন্যতম জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এ দু’টি হত্যার অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আব্দুর রউফ জানান, তরুণীর পরিচয় সনাক্তে কাজ করছে পুলিশ । পরিচয় পেলে ক্লু উদঘাটনপূর্বক অপরাধী গ্রেফতারে সহজ হবে।