ঘোড়াঘাটে স্বামীর বিরুদ্ধে হিজরা রিপনের আদালতে মামলা

মাহতাব উদ্দিন আল মাহমুদ,ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর)-দিনাজপুর ঘোড়াঘাটের এক নারীতে রূপান্তরিত হয়ে বিয়ে করে সংসার করা হলো না তৃতীয় লিঙ্গ হিজরা রিপনের।
অবশেষে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দিনাজপুর আদালতে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করলো হিজরা রপোন।
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার চিত্তিপাড়া গ্রামের মুত আইয়ুব আলীর পুত্র হিজরা রিপন তৃতীয় লিঙ্গ হওয়ায় অস্ত্রপাচার করে করে সে নারীতে রুপান্ত্রিত হয়। সে সুস্মিতা নাম করন করে। পরে সে ঘোড়াঘাট পৌর সভার জমিলাপুর গ্রামের আঃ রহিমের পুত্র ইব্রাহিমকে ভালবেসে বিয়ে করেন। তাদের বিয়ে অন্যদের মতো ধুমধাম করা হয়।এ বিয়ে বেশী দিন টিকলোনা। অল্প দিনের মধ্যে ঘটে যায় বিচ্ছেদ। এ দিকে হিজরা সুস্মিতার ভালবেসে বিয়ে করেও তার আর ঘর বাধা হলো না।
এ দিকে হিজরা সুস্মিতা অন্যের মতো স্বামীকে নিয়ে সুখে সংসার বাধার স্বপ্ন ছিল। তার অস্ত্রপচারের জন্য অনেক অর্থ ব্যায় করে ভারত থেকে অস্ত্রপচার কওে নারীতে রূপান্তরিত হয় সে। স্বামীর সংসার করার স্বপ্নে যৌতুকও দিয়েছিলেন হিজরা সুস্মিতা। অবশেষে তার স্বপ্ন এক নিমিশে ভেঙ্গে চুর মার হয়ে গেল।
নিয়তি তাকে আবারো পথে নামিয়ে দিল। সে এখন ভিক্ষা বিত্তি করে চলে তার জীবন জীবিকা। স্বামীকে ফিরে পেতে গত ১১ই মে দিনাজপুর আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১(গ)ধারা মতে বিয়ে করা স্¦ামী ইব্রাহিমকে বিবাদি করে একটি মামলা রুজু করেছে সে।
হিজরা সুস্মিতা জানান, অন্য মেয়ের মতো ভালবেসে বিয়ে করেও তার আর ঘর করতে পারলামনা না। এই সব তীতৃয় লিঙ্গের মানুষের জন্য সরকারকি কোন ব্যবস্থা নিবেনা ,তাই তারা বাধ্য হয়ে তাদের জীবন জীবিকা নির্বাহের জন্য এ সব কাজ করছি।