সামাজিক মাধ্যমে ‘কুৎসা রটানোয়’ বগুড়ায় থানায় অভিযোগ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউব চ্যানেলে সাক্ষাতকারের মাধ্যমে কুৎসা ও আক্রমণাত্মক কথা ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ করেছেন বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থী মো. মঞ্জুরুল হক মঞ্জুর। এ ঘটনায় রোববার দুপুরে বগুড়া সদর থানায় একটি অভিযোগ করেন তিনি।
মঞ্জুরুল হক বগুড়া জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক। এ ছাড়া চলতি জেলা পরিষদ নির্বাচনের গাবতলী উপজেলার ১০ নং ওয়ার্ডে উটপাখি প্রতীকে সাধারণ সদস্য হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।
অভিযোগে কাহালু উপজেলার বেলঘরিয়া এলাকার মানিকুল ইসলাম মানিককে অভিযুক্ত করেন মঞ্জুর।
অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, মানিকুল ইসলাম মানিক গত ৩ বছর ধরে জেলা কৃষক লীগের সম্পাদক মঞ্জুরের সাথে বিভিন্ন জায়গায় দেখা সাক্ষাৎ ও কথাবার্তা বলে আসছেন। কিন্তু হঠাৎ করে ১৭ অক্টোবর নির্বাচনকে উপলক্ষ করে মঞ্জুরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে আসছেন মানিক। এরই অংশ হিসেবে গত ১৫ অক্টোবর রাত আনুমানিক ১০টার দিকে নির্বাচনে ইমেজকে ক্ষতিগ্রস্ত করার লক্ষ্যে কিছু কুচক্রী মহলের পরামর্শে তাকে নিয়ে নিয়োগ বানিজ্য ভূয়া নিয়োগপত্র প্রদানকারী মর্মে অভিযুক্ত করে মিথ্যা অপপ্রচার চালায়। এতে করে মঞ্জুরুল হকের নির্বাচনী ইমেজ ক্ষতিগ্রস্ত ও মানসম্মানের ক্ষতি হয়।
এ বিষয়ে মঞ্জুরুল হক বলেন, মানিককে আমি আগে থেকে চিনতাম। কাল (সোমবার) জেলা পরিষদের নির্বাচন। এমন সময় ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে গুজব ছড়িয়ে সে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। যাতে আমার নির্বাচনী মাঠ দুর্বল হয়ে যায়। এটা আমার ব্যক্তিজীবনকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। এ জন্যই আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি।
অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বগুড়া সদর থানার ওসি নূরে আলম সিদ্দিকী। তিনি বলেন, দুপুরে এ অভিযোগটি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের তদন্ত চলছে।